অসুস্থ অবস্থায় ভিসিবিরোধী আন্দোলনে সেই ছাত্রী

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৬:৫৪ পিএম, ০৬ নভেম্বর ২০১৯

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে চলমান আন্দোলনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হামলায় আহত মারিয়াম রশিদ ছন্দা নামের ওই ছাত্রী আবারও আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন।

সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষ হওয়ার আগেই বুধবার সন্ধ্যায় অসুস্থ অবস্থায় আন্দোলনে যোগ দেন তিনি। এর আগে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হামলায় মারিয়াম রশিদ ছন্দা গুরুতর আহত হন। সরকার ও রাজনীতি বিভাগের স্নাতকোত্তরের ছাত্রী মারিয়াম রশিদ ছন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

দুর্নীতির অভিযোগে উপাচার্যবিরোধী আন্দোলনে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসভবনের সামনে আন্দোলনকারীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

ছাত্রলীগের হামলায় পাঁচ নারী শিক্ষার্থীসহ অন্তত ৩৫ আহত হন। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টার ও এনাম মেডিকেলে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এরই মধ্যে মারিয়াম রশিদ ছন্দার ওপর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হামলার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, ছাত্রলীগের এক কর্মী ছন্দার পেটে লাথি মারেন। এতে যন্ত্রণায় মাটিয়ে লুটিয়ে পড়েন তিনি। হামলার শিকার মারিয়াম মাটিতে শুয়ে কিছুক্ষণ কাতরান। এ সময় তাকে ধরাধরি করে হাসপাতালে নিয়ে যান তার সহপাঠীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রফ্রন্টের জাবি শাখার সভাপতি মাহাথির মোহাম্মদের ওপর হামলা করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তাকে বাঁচাতে এগিয়ে যান মারিয়াম রশিদ ছন্দা। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে ছাত্রলীগের এক কর্মী মারিয়ামের পেটে লাথি মারেন। এতে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি।

পরে আন্দোলকারীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যান। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বুধবার অসুস্থ অবস্থায় ভিসি অপসারণের আন্দোলেন যোগ দেন ছন্দা। সন্ধ্যায় উপাচার্যের বাসভবনের সামনে আন্দোলনকারীরা অবস্থান নিলে সেখানে গিয়ে স্লোগান দেন তিনি।

এ সময় মারিয়াম রশিদ ছন্দা বলেন, আমাকে যখন মারধর করা হয় তখন সেখানে অনেক শিক্ষক চেয়ে চেয়ে দেখেছেন। মাটিতে লুটিয়ে পড়লেও অনেকে নাটক বলেছেন। ন্যায়ের পক্ষে আমাদের এই সংগ্রাম চলছে চলবে। ভিসি অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন বন্ধ হবে না।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পুরনো প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে আসেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। পরে তারা সেখানে বিক্ষোভ করতে থাকেন ।

আন্দোলনের মুখে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। সেখানে এখন মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও পুলিশ সদস্যরা। এ অবস্থায় যেকোনো সময় পুলিশি হামলার আশঙ্কা করছেন আন্দোলনকারীরা।

এএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]