২১ নভেম্বরের মধ্যে জাবিকে সচল করার আল্টিমেটাম

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৭:৪১ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৯

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ২১ নভেম্বরের মধ্যে সচলের আল্টিমেটাম দিয়েছে আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলাভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ আল্টিমেটাম দেন তারা।

এ সময় আন্দোলনের সমন্বয়ক অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, ২১ নভেম্বরের মধ্যে হল ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহার করে শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। অন্যথায় ২২ নভেম্বর থেকে আরও জোরালো আন্দোলন শুরু করা হবে। আর এই সময়ে উপাচার্য কোনো নীতি-নির্ধারণী কাজে অংশ নিতে পারবেন না।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আন্দোলনের সংগঠক ও ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম অনিক বলেন, গত ৫ নভেম্বর আন্দোলনকারীদের ওপর উপাচার্যের প্রত্যক্ষ মদদে ছাত্রলীগের হামলার পরে তিনি আর স্বপদে থাকার অধিকার রাখেন না। এরপরও তিনি নিজের পদে টিকে থাকার জন্য হাজার হাজার শিক্ষার্থীর দুর্ভোগের কথা চিন্তা না করেই বিশ্ববিদ্যালয় ও আবাসিক হল বন্ধ ঘোষণা করেছেন। তবে এ সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে সেদিন শত শত শিক্ষার্থী হলের তালা ভেঙে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেন। এতে প্রমাণ হয় যে, উপাচার্য এই নৈতিক ও যৌক্তিক আন্দোলনে ভয় পান। আর তা দমাতেই তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ও হল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, শুধু আর্থিক কেলেঙ্কারি নয়, উপাচার্যের প্রত্যক্ষ মদদে হামলা ও অদক্ষ-অযোগ্য, ভারপ্রাপ্ত প্রশাসন দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায় ব্যর্থ হওয়ায় তার অপসারণ জরুরি।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক খবির উদ্দিন, অধ্যাপক কামরুল আহসান, অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, অধ্যাপক তারেক রেজাসহ আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ৫ নভেম্বর উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে আন্দোলনরতদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওই দিন সিন্ডিকেটের এক জরুরি সভায় বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

ফারুক হোসেন/এমবিআর/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com