শাবি উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শাবি
প্রকাশিত: ০৮:৪৬ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবি) প্রশাসনের বিভিন্ন ধরনের বিধি-নিষেধের প্রতিবাদে ১৬ দফা দাবিতে দুই ধরনের আলটিমেটাম দিয়েছিলেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। প্রথম ছয় দফা ‘আশু দাবিসমূহ’ পূরণে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বেঁধে দেয়া সাতদিন শেষ হয় গতকাল বুধবার।

কিন্তু দাবি মেনে না নেয়ায় বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) বিকেল ৪টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বরে বাস অবরোধ করে বিক্ষোভ করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্ল্যাটফর্ম ‘শাবিপ্রবির সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ’। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসসহ সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে সন্ধ্যা ৭টায় উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ‘সাস্টিয়ান, সাস্টিয়ান, এক হও, এক হও’, ‘১৬ দফা দাবি, মানতে হবে মানতে হবে’, ‘জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্রসমাজ জেগেছে’, ‘লড়াই লড়াই লড়াই চাই, বাঁচার মতো বাঁচতে চাই’, ‘আমাদের সংগ্রাম চলবে, চলবে’, ‘আমাদের দাবি মানতে হবে’ স্লোগান দিচ্ছেন।

রাত ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আলোচনা চলছে। দুপুর আড়াইটা থেকে আলোচনা শুরু হলেও এখনও ইতিবাচক ফলাফল না আসায় অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

sust01

গত ২৭ নভেম্বর ১৬ দফা দাবি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দুই ধরনের আলটিমেটাম দিয়েছিলেন শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে ছয় দফা ‘আশু দাবিসমূহ’ ও ১০ দফা ‘দীর্ঘমেয়াদি দাবিসমূহ’ রয়েছে। বুধবার ‘আশু দাবিসমূহ’র আলটিমেটাম শেষ হয়।

আশু দাবির মধ্যে রয়েছে- ক্যাম্পাসে সর্বাত্মক গণতান্ত্রিক পরিবেশে নিশ্চিত করা, আসন্ন সমাবর্তন চলাকালীন ও সারা বছর আবাসিক হল খোলা রাখা, আবাসিক হলে প্রবেশ ও বের হওয়ার ক্ষেত্রে ছেলে-মেয়ে বৈষম্য না করা, সংগঠনগুলোকে ভেন্যু বরাদ্দের ক্ষেত্রে পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ না করাসহ মোট ছয় দফা দাবি।

অন্যদিকে দ্বিতীয় ১০ দফা দীর্ঘমেয়াদি দাবির মধ্যে রয়েছে- পরীক্ষার খাতায় পরিচয় নির্দেশক রেজিস্ট্রেশন নম্বরের পরিবর্তে কোডিং সিস্টেমের ব্যবস্থা করা, শিক্ষার্থীদের শতভাগ আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, শিক্ষার্থীদের আনুপাতিক হারে বাসের সংখ্যা এবং বাসের রুট ও ট্রিপ সংখ্যা বৃদ্ধি করা, কেন্দ্রীয় মিলনায়তনের মানোন্নয়ন ও সংস্কার করাসহ ১০ দফা দাবি।

আগামী বছরের ২৬ মার্চের মধ্যে দীর্ঘমেয়াদি দাবিসমূহ মেনে নিতে প্রশাসনকে আলটিমেটাম দেন শিক্ষার্থীরা। দাবিসমূহ মানা না হলে আন্দোলন অব্যাহত রেখে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন তারা।

মোয়াজ্জেম হোসেন/আরএআর/এমকেএইচ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]