রুম্পা ‘হত্যার’ বিচার দাবিতে স্টামফোর্ডে শিক্ষার্থীদের অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:০৬ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পার ‘হত্যার’ বিচারের দাবিতে তৃতীয় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা। রোববার দুপুর ১২টায় ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীরা সমাবেত হয়ে এ কর্মসূচি পালন করেন। অবস্থান কর্মসূচি থেকে বিচার দাবিতে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠে রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরীর স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস।

ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে হাতে প্লাকার্ড নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। ‘রুম্পা হত্যার বিচার চাই’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিজ’, ‘রুম্পার ধর্ষণ ও হত্যার বিচার চাই’, ‘বিচার হতেই হবে, আর কত?’, ‘স্টপ স্টপ স্টপ’সহ নানা স্লোগান লেখা প্লাকার্ড হাতে নিয়ে তারা এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। অবস্থান কর্মসূচি থেকে তারা রুম্পা হত্যার বিচার চেয়ে স্লোগান দেন।

শিক্ষার্থীরা বলেন, রুম্পা হত্যার চারদিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত এ হত্যার কারণ উদঘাটন করা হয়নি। রুম্পার হত্যার রহস্য তার সহপাঠীরা জানতে চায়, তাই দ্রুত এ তদন্ত প্রতিবেদন জানাতে হবে। গত তিনদিন ধরে আমরা ক্যাম্পাসে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি, এভাবে প্রশাসন ঘুমিয়ে থাকলে আমরা কঠোর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হব।

তারা আরও বলেন, রুম্পা হত্যার বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। আগামী দুই-একদিনের মধ্যে রুম্পা হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন দেয়া না হলে আমরা কঠোর আন্দোলনে নামব।

Rumpa-Dhaka1

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ছাত্রী রাইসা বলেন, গত চারদিন ধরে রুম্পা আমাদের মাঝে নেই, ও নেই কথাটি ভাবতেই গা শিউরে উঠে, ওর রক্ত মাখা মুখটা আমার সামনে ভেসে ওঠে। রুম্পা আত্মহত্যা, হত্যা বা যাই হোক আমরা তা জানতে চাই। আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে রুম্পার হত্যার তদন্ত রিপোর্ট দিতে হবে। এরপর আমরা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করব।

একই বিভাগের ছাত্র জাফর বলেন, রুম্পা ছিল একটি হাসি-খুশি মাখা মুখ, বিভাগের সকলের সঙ্গে তার সুসম্পর্ক ছিল। ছোট-বড় সকলেই তাকে চিনতো ও পছন্দ করতো। আমাদের এ বোনটি চলে গেছে। তার মৃত্যু হলেও সেটির সঠিক বিচার চাই।

ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক জেরিন বলেন, আমরা কোনো শিক্ষার্থীকে হারাতে চাই না, রুম্পা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত একজন ছাত্রী ছিল, অনেক প্রাণ চঞ্চল প্রকৃতির মেয়ে ছিল। কেন সে খুন হয়েছে, কে করেছে, কিভাবে করেছে তা জানতে চাই। দ্রুত প্রশাসনকে এ বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার দাবি জানাই।

আরেক সহপাঠী রাশেদ বলেন, একটি সুন্দর মনের মেয়ে কখনও আত্মহত্যা করতে পারে, আমরা তা বিশ্বাস করি না। রুম্পার বাসা শান্তিনগর, অথচ তার মৃতদেহ সিদ্ধেশ্বরী পাওয়া গেছে। এটি একটি বড় রহস্য তৈরি হয়েছে। দ্রুত এসব রহস্যের তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করতে প্রশাসনের প্রতি দাবি জানাচ্ছি। প্রতিবেদন প্রকাশের পর প্রশাসনের পরবর্তী পদক্ষেপ দেখার আগ পর্যন্ত আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চলবে।

এ সময়ের আগ পর্যন্ত ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে না বলেও জানান তিনি। বক্তব্য শেষে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পদক্ষিণ করেন। এ সময় ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ বলে স্লোগান দেন শিক্ষার্থীরা।

এমএইচএম/আরএস/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]