ঢাবি প্রক্টর ছাত্রলীগের চেয়েও ভয়ংকর : ভিপি নুর

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ঢাবি
প্রকাশিত: ০৮:৫৩ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২০

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রাব্বানীকে ছাত্রলীগের চেয়েও বেশি ভয়ংকর বলে অভিহিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর।

শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের চার শিক্ষার্থীকে নির্যাতন করার প্রতিবাদে বুধবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এক সমাবেশে ডাকসু ভিপি বলেন, ‘দলকানা প্রশাসন ছাত্রলীগের নির্মম নির্যাতনের পরেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। জহুরুল হক হলে গতকাল রাতে চার শিক্ষার্থীকে নির্যাতন করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তারা বেধড়ক পিটিয়েছে। যে নির্যাতন করেছে তা আমি শাহবাগ থানায় গিয়ে দেখেছি। তাদের আবরারের মতো পিটিয়েছে। হাতুড়ি দিয়ে, স্টাম্প দিয়ে পিটিয়েছে। হয়তো এই চারজনের মধ্যে কেউ একজনের আবরারের মতো পরিণতি হতে পারত।’

তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের নির্যাতন-নিপীড়ন থেকে কেউ রেহাই পাচ্ছে না। আমি ভিপি হয়েও ডাকসু ভবনে নির্যাতনের শিকার হয়েছি। তাহলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা কোথায়? আজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কাছে বিচার দিয়েও বিচার পাওয়া যায় না। প্রক্টর দলীয় ক্যাডারের মতো ভূমিকা পালন করছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ছাত্রলীগের চেয়েও বেশি ভয়ংকর।’

‘নিরাপদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার জন্য সন্ত্রাসবিরোধী ছাত্র ঐক্য গড়ে তোলতে আপনারা সন্ত্রাসবিরোধী ছাত্রঐক্যের নেতৃত্বে হলে হলে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তুলুন।’

DU-student-2

সমাবেশে সন্ত্রাসবিরোধী ছাত্রঐক্যের মুখপাত্র আল কাদেরী জয় বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারই জামায়াত-শিবিরের পৃষ্ঠপোষক। আওয়ামী লীগ সরকার ১২ বছর ক্ষমতায় থাকার পরও কেন জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ করছে না? এই আওয়ামী লীগ মানুষকে মারার জন্য জামায়াত-শিবিরের নাম ব্যবহার করছে।’

চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পায়নি পুলিশ

মঙ্গলবার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের গেস্টরুমে চার শিক্ষার্থীকে শিবির বলে মারধর করেন ছাত্রলীগের নেতারা। মারধরের পর শিক্ষার্থীদের পুলিশে দেয় ছাত্রলীগ। কিন্তু পুলিশ চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কোনো ধরনের জামায়াত-শিবিরের সংশ্লিষ্টতা না পেয়ে বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে থানা থেকে তাদের ছেড়ে দেয় পুলিশ।

এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে শিবির সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া যায়নি এবং তাদের বিরুদ্ধে কেউ লিখিত অভিযোগও দেয়নি।

রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা

অন্যায়ভাবে গেস্টরুমে ডেকে নির্যাতনের প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নিয়েছেন ছাত্রলীগের হাতে নির্মম প্রহারের শিকার মুকিম মোহাম্মদ চৌধুরী। নির্যাতনের বিচারের দাবিতে প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন এই শিক্ষার্থী।

ভুক্তভোগী এ শিক্ষার্থী বলেন, আমিসহ আরও তিনজন শিক্ষার্থীকে ভুয়া ও বানোয়াট স্ক্রিনশট দেখিয়ে মারধর করা হয়েছে। আমি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে এর যথোপযুক্ত বিচারের দাবি জানাচ্ছি।

জেডএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]