শহীদ দিবসে হাসির সেলফিতে ভাইরাল জবি শিক্ষকরা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৩ এএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তবে শহীদ দিবসে হাসিমুখে সেলফি তুলেই ক্যাম্পাসজুড়ে ভাইরাল হয়েছেন জবির কয়েকজন শিক্ষক।

শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শিক্ষকদের হাসিমুখে তোলা একটি সেলফি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করা হয়। কারণ ছবিতে শোকের কালো ব্যাজ দৃশ্যমান ছিল।

ছবিতে দেখা যায়, জবির ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সহকারী প্রক্টর নিউটন হাওলাদার কয়েকজন শিক্ষকের সঙ্গে হাসিমুখে সেলফি তুলে পোস্ট করেন। ওই ছবিতেই কালো ব্যাজ পরিহিত ছিলেন তিনি। ছবিতে তার সঙ্গে আরও ছিলেন- সহকারী অধ্যাপক ও সহকারী প্রক্টর শামসুল কবীর, আসাদুজ্জামান রিপন ও রেজাউল করিম।

উল্লেখ্য, ছবির বিষয়টি জানাজানি হলে নিউটন হাওলাদার সেটি তার নিজস্ব ফেসবুক প্রোফাইল থেকে সরিয়ে নেন।

মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কিশোর রায় বলেন, ‘আমরা শহীদদের প্রতি অবশ্যই শ্রদ্ধা জানাই। শহীদ দিবসে এভাবে ছবি তোলা ঠিক হয়নি, তারপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া ঠিক হয়নি।‘

এ বিষয়ে সহকারী প্রক্টর ড. রেজাউল ইসলাম বলেন, ‘শহীদ দিবসে শ্রদ্ধা জানানো কাজ, কিন্তু বাকি কাজতো আর থামায় রাখা যাবে না। এটা বেদিতে তোলা হয়নি, খাওয়ার পর তোলা হয়েছে। তবে স্ট্যাটাসটা ঠিক হয়নি।‘

সহকারী প্রক্টর শামসুল কবীর বলেন, ‘এগুলোর জন্যই ফোন দেয়া? এটার জন্য প্রশাসনে ফোন দেন। আমি কিছু বলব না।‘

নিউটন হাওলাদার বলেন, ‘আমরা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে কার্জন হলে নাস্তা করার পর ছবি তোলা হয়। পোস্ট করাটা ঠিক হয়নি। আমি পোস্টটা ডিলিট করে দিয়েছি। আমরা আসলে উদযাপন করেছি এমনটা না, শহীদ দিবসে হাসিমুখে ছবি তোলা যায় না।‘

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. শামীমা ইসলাম বলেন, ‘নিউটন কোন ফাঁকে এসে ছবি তুলছে আমি খেয়াল করেনি। কেউতো ইচ্ছা করে তোলে না। আমরা ভেতর থেকে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ধারণ করি। এটা আসলে ঠিক হয়নি।‘

প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, ‘ভাষা শহীদদের সম্মানের জন্য ভাবগাম্ভীর্য বজায় রাখা উচিত। নিউটনের একটা ছবির বিষয়ে আমি জেনেছি, আমি ডিলিট করে দিতে বলেছি, সকালের নাস্তা খাওয়ার পর ছবি তুলেছিল। কোনো হাসিমুখে ছবি তোলা হয়নি, খাওয়ার পরে দাঁত বের হয়েছে এমন ছবি তুলতে পারে।‘

এফআর/পিআর

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com