অসহায় ৬০০ কর্মচারীকে ১২ লাখ টাকা দিচ্ছেন রাবির শিক্ষকরা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৩:১৬ এএম, ১৩ মে ২০২০

করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অসহায় কর্মচারীদের ১২ লাখ টাকা সহযোগিতার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

গত শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আশরাফুল ইসলাম খান।

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল, বিভাগে কর্মরত অস্থায়ী চুক্তিভিত্তিক কর্মচারী (মাস্টার রোল নয়) এবং এবং ক্যাম্পাসে অস্থায়ী দোকানের কর্মচারীসহ স্বল্প বেতনধারী সর্বমোট ৬০০ (ছয়শত) জনকে প্রত্যেককে ২০০০/- (দুই হাজার) টাকা করে মোট ১২ (বার) লাখ টাকা প্রদান করা হবে।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর ও মেহেচন্ডীর অসহায় মানুষের সহায়তায় রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খাইরুজ্জামান লিটনের তহবিলে ০৫ (পাঁচ) টন চাল এবং রাজশাহী জেলা প্রশাসনকে ০৫ (পাঁচ) টন চাল প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

অন্যদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত অস্থায়ী দোকানদার এবং দোকানের কর্মচারীদেরকে মোট ৮০ (আশি) জনকে পরবর্তী সপ্তাহে আর্থিক সাহায্য প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে।

উদ্যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক আশরাফুল বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। এরই ধারাবাহিকতায় আমরা আমাদের সকল শিক্ষকদের বিষয়টা অবহিত করি। বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বল্প বেতনধারী কর্মচারী ও অসহায় দোকানের কর্মচারীদের পাশে দাঁড়ানো যায় কিনা। পরে শিক্ষকদের আশানুরূপ সাড়া পাই এবং উদ্যোগ গ্রহণ করি।

ইতোমধ্যে আমরা অসহায় কর্মচারীদের তালিকা তৈরি করেছি এবং দুই/একদিনের মধ্যেই বিতরণ করবেন বলে জানান তিনি।

এর আগে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে এক কোটি টাকা হস্তান্তর করেছেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল মাস্টার রোলের কর্মচারী যারা কাজ করলেই শুধু টাকা পান এ ভিত্তিতে নিয়োগকৃত তাদের বেতন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকা সত্ত্বেও অব্যাহত রেখেছেন।

সালমান শাকিল/এমএএস/এফআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]