স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট, রাবি শিক্ষক বরখাস্ত

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৩:২২ পিএম, ২৭ জুন ২০২০

প্রয়াত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সময়ে স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষক কাজী জাহিদুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এর আগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কাজী জাহিদুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়।

শনিবার (২৭ জুন) সকালে উপাচার্যের বাসভবনে অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় তাকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহান সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা বলেন, শিক্ষক কাজী জাহিদুর রহমান গ্রেফতার হওয়ার পর আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের লিগ্যাল সেলের মাধ্যমে আইন পর্যালোচনা করা হয়। আইন পর্যালোচনায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

তাই গ্রেফতারের দিন গত ১৮ জুন থেকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিন্ডিকেট। তিনি মামলায় জেলে আছেন সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তিনি সাময়িক বরখাস্ত থাকবেন। তবে আইন অনুযায়ী তার বেতনের একটি নির্ধারিত অংশ তিনি পাবেন বলেও জানান উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা।

এর আগে প্রয়াত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সময়ে স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি নিয়ে ফেসবুক পোস্টে কটূক্তির অভিযোগ এনে এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করেন রাজশাহী সাগরপাড়ার বাসিন্দা অ্যাডভোকেট তাপস কুমার সাহা। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৯ ও ৩১ ধারায় অভিযোগ আনা হয়।

গত ১৭ জুন মধ্যরাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কোয়ার্টার থেকে কাজী জাহিদুর রহমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সেই থেকে কারাগারে আছেন ওই শিক্ষক।

এর আগে মোহাম্মদ নাসিম অসুস্থ হওয়ার পর কাজী জাহিদুর রহমান তার ফেসবুক পোস্টে স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি নিয়ে কয়েকটি লেখা পোস্ট করেন। পরে তার শাস্তির দাবি জানান ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও আওয়ামীপন্থী শিক্ষকরা।

সালমান শাকিল/এএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]