ডাকসু নির্বাচনে অনিয়মের সংশ্লিষ্টতায় প্রাধ্যক্ষের শাস্তি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন-২০১৯ এ অনিয়মের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়ায় বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলের তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত প্রাধ্যক্ষ ড. শবনম জাহানকে শাস্তি হিসেবে সহযোগী অধ্যাপক থেকে সহকারী অধ্যাপক পদে পদাবনতি দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২০ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী বিধান সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন সিন্ডিকেটে উপস্থিত একাধিক সদস্য। এছাড়া ড. শবনম জাহানের সাথে দায়িত্বরত হলের আরও দুই হাউস টিউটরকে সতর্ক করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন।

ড. শবনম জাহান বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্য অনুষদভুক্ত ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ডাকসু নির্বাচনের সময় বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে বাক্সভর্তি ব্যালট পেপার উদ্বারের পর তাৎক্ষণিকভাবে তাকে ভারপ্রাপ্ত প্রাধ্যক্ষ পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

সিন্ডিকেট সভায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে অধিকতর তদন্তের জন্য ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের সংখ্যাতিরিক্ত অধ্যাপক ড. খন্দকার ফজলুল হকের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এক বছরের বেশি সময় পর সে কমিটির দেওয়া প্রতিবেদনে আনীত অভিযোগ সত্য হওয়ায় তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]