৬ শতাধিক শিক্ষার্থীকে হারিয়ে কুইজে চ্যাম্পিয়ন বুয়েটের তাকি

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:০০ পিএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

দেশের সরকারি-বেসরকারি মোট ৫১টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাড়ে ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা ‘ব্যাটল অব ব্রেইন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার গ্রিন ইউনিভার্সিটির ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে এই প্রতিযোগিতা আয়োজিত হয়।

প্রতিযোগিতায় ৬৭৪ জন শিক্ষার্থীকে হারিয়ে ২০ হাজার ৪২ স্কোর নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বুয়েটের ইইই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তাকি ইয়াসির। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জন করে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির রাকিবুর অয়ন (ইইই বিভাগ, ৩য় বর্ষ) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইইই, ১ম বর্ষ) অনিক মাহমুদ।

এই দুই শিক্ষার্থীর যথাক্রমে ১৯ হাজার ৪৬৩ ও ১৯ হাজার ২৪৭ স্কোর অর্জন করে। প্রতিযোগিতায় শীর্ষ ১০-এ প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র শিক্ষার্থী হিসেবে নবম স্থান অধিকার করে গ্রিন ইউনিভার্সিটির হাসিবুল হাসান রহিম। বিজয়ী প্রত্যেককে পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

jagonews24

পরে প্রতিযোগিতার নানা বিষয় ও বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য দেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. ফায়জুর রহমান, অধ্যাপক ড. কামরুল আহসান ও ইইই বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এএসএম শিহাবুদ্দিন।

উপাচার্য ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির বলেন, প্রতিযোগিতায় প্রথম হওয়া বড় কথা নয়, বরং অংশগ্রহণ করাটাই মূল ব্যাপার। তিনি বলেন, একবিংশ শতাব্দীতে টিকে থাকতে হলে শিক্ষার্থীদের নানামুখী চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে হবে। অর্ধশত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতাও এর ক্ষুদ্র অংশ।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক অংশগ্রহণকারী সব প্রতিযোগীকে বিজয়ী আখ্যা দিয়ে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, এ ধরনের প্রতিযোগিতা নিঃসন্দেহে শিক্ষার্থীদের ভিন্ন ভিন্ন দক্ষতা অর্জনে সহায়ক হবে।

বিভাগীয় চেয়ারপার্সন ড. এএসএম শিহাবুদ্দিন বলেন, চলতি বছরে এটাই সবচেয়ে বড় অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা। বক্তব্যে কুইজের খুঁটিনাটি তুলে ধরে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]