অনলাইন আবেদনেও ভোগান্তি কমেনি শিক্ষার্থীদের

ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
ক্যাম্পাস প্রতিবেদক ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৭ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে সাত কলেজের ফল সমন্বয় ও সংশোধন আবেদন অনলাইনে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এর ফলে শিক্ষার্থীদের আর বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসে উপস্থিত হয়ে আবেদন করতে হবে না।

যেকোনো স্থান থেকে অনলাইনে আবেদন করা যাবে। কিন্তু এরপরও ভোগান্তি কমেনি শিক্ষার্থীদের।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ফল সংশোধনের জন্য পরীক্ষার কেন্দ্র থেকে হাজিরা শিটের ফটোকপি সংগ্রহ করতে হয়। এরপর শিক্ষার্থীকে আবেদনপত্র লিখে তাতে নিজ কলেজের অধ্যক্ষের স্বাক্ষর নিতে হয়। ওই কাগজের স্ক্যান কপি অনলাইনে আপলোড করে আবেদন করতে হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, আবেদন অনলাইনে হলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে ডকুমেন্টস সংগ্রহ করতে কলেজে যেতে হচ্ছে। এতে অনলাইনে আবেদনের সুফল পাচ্ছেন না শিক্ষার্থীরা।

কবি নজরুল কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী কাওসার ইশতিয়াক বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অধিকাংশ শিক্ষার্থী গ্রামে অবস্থান করছেন। এছাড়া সব বর্ষে পাস থাকা সত্ত্বেও সিজিপিএ না আসায় ফল সমন্বয় করতে হচ্ছে। সমন্বয় আবেদনে অধ্যক্ষের স্বাক্ষর সংগ্রহ করতে গ্রাম থেকে ঢাকায় আসতে হচ্ছে। যাতায়াত ভাড়ার পাশাপাশি থাকছে স্বাস্থ্যঝুঁকিও।

তিতুমীর কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাদিয়া ইসলাম বলেন, কলেজ থেকে অধ্যক্ষের স্বাক্ষর সংগ্রহ করা খুবই সময়সাপেক্ষ। দুই সপ্তাহ আগে অনলাইনে আবেদন করেছি। কিন্তু এখনও ফল সমন্বয় হয়নি। কবে সমন্বয় হবে তাও জানি না।

এ বিষয়ে কবি নজরুল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ও সাত কলেজের সমন্বয়ক (ফোকাল পয়েন্ট) প্রফেসর আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে আবেদনের ব্যবস্থা করলেও আমাদের ক্ষেত্রে (কলেজের জন্য) এখনও বিষয়টি ম্যানুয়াল রেখে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা আপত্তি জানিয়েছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারা বিষয়টি বিবেচনা করবেন।

আবেদনে অধ্যক্ষের স্বাক্ষর প্রয়োজন আছে কিনা— প্রশ্ন করা হলে অধিভুক্ত সাত কলেজের এই সমন্বয়ক বলেন, প্রয়োজন মনে করি না।

নাহিদ হাসান/এমএআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]