৯৪ ও ৯৬ ক্লাবের একদিন

ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
ক্যাম্পাস প্রতিবেদক ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৮ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০২০

এসএসসি ১৯৯৪ ও এইচএসসি ১৯৯৬ ব্যাচের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমভিত্তিক গ্রুপ ‘৯৪ ও ৯৬’ ক্লাবের প্রায় ৪ শতাধিক বন্ধুরা শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) ধানমন্ডি কনভেনশন সেন্টারে মিলিত হয়েছিলেন। এই মিলনমেলায় আকাশি রঙের টি-শার্ট যেন স্বপ্নের রঙ ছড়াচ্ছিল পুরো কনভেনশন হলজুড়ে।

আয়োজকদের ভাষ্য- ‘করোনা না থাকলে আরও অন্তত কয়েকগুণ বেশি বন্ধু জড় হতে পারতাম।’

অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া নিগার সুলতানা নামের একজন খুবই উৎফুল্ল হয়ে বলেন, ‘করোনার এই সময়টাতে ঘরে বন্দি থেকে মানসিক যন্ত্রণায় ভুগছিলাম। আজ একটা দিনে সেইসব অবসাদ ভুলে মনে হচ্ছে- ফেলে আসা শৈশবে হারিয়ে গেলাম। বন্ধুত্ব এমন একটা বিষয়, যেখানে নেই কোনো ক্লান্তি কিংবা অবসাদ। এখানেই শুধুই আনন্দ আর উৎসবে মেতে থাকার এক সম্পর্ক।’

২০১৯ সালের ২৭ জুলাই শুরু হওয়া এই ক্লাবে ইতোমধ্যে প্রায় ৫ হাজারেরও বেশি মানুষ যুক্ত হয়েছে। যাদের মধ্যে ৬৪ জেলা ও বিদেশে অন্তত ৫টি দেশে প্রতিনিধি রয়েছে। প্রতিষ্ঠার পর গত বছর বিজয় দিবসে রাজধানীর লালবাগ এলাকায় একটি এতিমখানায় খাবার ও কম্বল বিতরণের মাধ্যমে তারা কার্যক্রম শুরু করে। এরপর সারাদেশে ছোটবড় অন্তত দশটি বন্ধু আড্ডার আয়োজন করে। করোনাকালে সামাজিক দায়িত্ববোধ থেকে অসহায় মানুষের পাশেও দাঁড়ান তারা।

উদ্যোক্তাদের লক্ষ্য এসএসসি ১৯৯৪ ও এইচএসসি ১৯৯৬ এর বন্ধুদের সবাইকে এক ছাতার নিচে যুক্ত করা। একসঙ্গে পথচলা ও একে অন্যের সুখে দুঃখে পাশে দাঁড়ানো। সেইসঙ্গে দেশের নাগরিক হিসেবে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে পরিবর্তনের জন্য কাজ করা।

এই আয়োজনের উদ্যোক্তা ঢাকা কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থী সায়েম ইবনে ইসলাম অনিক বলেন, ‘ছোটবেলা থেকে সাংগঠনিক কাজে আমার আসক্তি। ঢাকা কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন করতাম। সেখান থেকেই মূলত ব্যাচের বন্ধুদের সম্মিলন ঘটাতে উদ্বুদ্ধ হই। গত বছর ২৭ জুলাই একটি ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে বন্ধুদের জড় করি। আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করি ২০১৯ সালের ১৬ ডিসেম্বর দিবসে রাজধানীর লালবাগ এলাকায় একটি এতিমখানায় শিশুদের মাঝে খাবার ও কম্বল বিতরণের মাধ্যমে।’

তিনি বলেন, ‘এরপর বিভিন্ন সময়ে বন্ধুরা সারাদেশের অন্তত ১০টি ইভেন্টে মিলিত হয়েছি। করোনাকালে ব্যাচের পক্ষ থেকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে। ইতোমধ্যে সারা দেশের ৬৪ জেলায়ও বিশ্বের অন্তত ৫টি দেশে আমাদের প্রতিনিধি রয়েছে।’

অনিক বলেন, ‘আজকের আয়োজনে অন্তত ৪ শতাধিক বন্ধু যুক্ত হয়েছে। ফেসবুক গ্রুপে ইতোমধ্যে প্রায় ৫ হাজার বন্ধু যুক্ত হয়েছে। এই সংগঠন নিয়ে আমাদের সবার অনেক স্বপ্ন ও পরিকল্পনা রয়েছে। প্রথমত এসএসসি ১৯৯৪ ও এইচএসসি ১৯৯৬ ব্যাচের প্রত্যেক বন্ধুকে একই প্লাটফর্মে নিয়ে আসা। এর মাধ্যমে একটা শক্ত বন্ধন তৈরি হবে। আমরা চাই নিজেরে মধ্যে একটা ভালো সম্পর্ক তৈরি হোক।’

নাহিদ হাসান/এফআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]