ঢামেকে চিকিৎসাধীন সেই ছাত্রী বললেন, ‘এখনও অনশনে আছি’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:১৬ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০২০

ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবিতে সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে তৈরিকৃত প্যান্ডেলে অনশন করে আসছিলেন ভুক্তভোগী এক ছাত্রী। গত ৮ অক্টোবর থেকে অনশন পালন করে আসলেও এখন ওই ছাত্রী সেখানে নেই। ধর্ষণের বিচারের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও তার অনুপস্থিতিতে প্রশ্ন উঠেছে সেই ছাত্রী এখন কোথায়?

শুক্রবার দুপুর ১২টায় রাজু ভাস্কর্য়ের সামনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে বসে ফুলের মালা গাঁথছেন এক নারী। তার সঙ্গে বসেছিলেন দশ এগার বছর বয়সী এক শিশু। প্যান্ডেলের এক পাশে ভেজা শাড়ি ও সালোয়ার ঝুলছিল। এখানে অনশনরত ছাত্রীটি কোথায় এমন প্রশ্নে ওই নারী জানাল, তারা এ এলাকার ভাসমান হকার। শাহবাগ থেকে ফুল কিনে এনে মালা বিক্রি করেন। সকালে থেকে কাউকেই দেখতে পাননি তারা।

লক্ষ্য করতেই দেখা যায়, প্যান্ডেলের নিচে পেছনের দিকে কালো হরফে লিখা ‘বিচারের বাণী নিভৃতে কাঁদে’অনতিবিলম্বে ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত অপরাধী ও পৃষ্ঠপোষকদের গ্রেফতার করতে হবে, সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। কিন্তু বেশ কয়েকদিন ধরে যে শিক্ষার্থী তাকে ধর্ষণের বিচারের দাবিতে অনশন করে আসছিলেন তাকে বা তাকে সমর্থন করে যারা অবস্থান করছিলেন কারও দেখা নেই। কেউ বলছে তিনি অসুস্থতাজনিত কারণে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আবার কেউবা বলছে অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণে তার ঘনিষ্টজনরা আপাতত বাসায় নিয়ে গেছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত নিশ্চিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

শুক্রবার বিকেলে জাগো নিউজের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি মোবাইলফোনে অনশনকারী ওই ছাত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তিনি বলেন, আজ অনশনের ১৬তম দিন। আমি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পুরাতন বিল্ডিংয়ের তিন তলায় কেবিনে চিকিৎসাধীন।

তিনি আরও বলেন, আমি এখনও অনশনে আছি। শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা নিচ্ছি।

এমইউ/সাদি/জেএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]