শতবর্ষে ঢাবি: আন্তর্জাতিক সম্মেলন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ঢাকা
প্রকাশিত: ০৭:৪৮ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি উদযাপন উপলক্ষে ‘Celebrating 100 years of the University of Dhaka : Reflections from the Alumni-International and National’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টায় নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি সম্মেলন উদ্বোধন করবেন।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। এ সময় সম্মেলনের বিষয়বস্তু ও গুরুত্ব উপস্থাপন করেন তিনি।

উপাচার্য জানান, আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত থাকবেন। বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক রেহমান সোবহান অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। এ ছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ (প্রশাসন) এবং অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল (শিক্ষা) বক্তব্য রাখবেন। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ। অন্যান্যের মধ্যে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ উপস্থিত থাকবেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রূপকল্প তুলে ধরে বলেন, ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লব উপযোগী বিশ্ববিদ্যালয় বিনির্মাণ ও দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিই হবে আমাদের প্রধান লক্ষ্য। এ লক্ষ্য অর্জনে ঢাকায় আগামী ২২ জানুয়ারি থেকে প্রতি মাসে একটি করে মোট ছয়টি বিষয়ভিত্তিক ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া, লন্ডনে আগামী ১২ থেকে ১৪ জুলাই একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এসব ভার্চুয়াল সম্মেলনে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত আমাদের অ্যালামনাইগণ শতাধিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। এতে বিশ্বের দুই শতাধিক খ্যাতিমান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট, ভাইস-প্রেসিডেন্ট, ভাইস-চ্যান্সেলর, প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর ও রেক্টরগণ সংযুক্ত থাকবেন। বিশ্বের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালমনাই এবং বর্তমান শিক্ষার্থীগণ সম্মেলনে যোগ দেবেন।’

এসব সম্মেলন থেকে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লব উপযোগী বিশ্ববিদ্যালয় বিনির্মাণ ও দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির ক্ষেত্রে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা, কৌশল ও তত্ত্ব-উপাত্ত পাওয়া যাবে বলে উপাচার্য আশা প্রকাশ করেন।

উপাচার্য আরো বলেন, ‘শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আগামী ১ জুলাই বর্ণাঢ্য উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর মো. আবদুল হামিদ প্রধান অতিথি হিসেবে ঐ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।’

এ ছাড়া শতবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিশেষ মর্যাদাসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে স্বীকৃতি পেতে কোনো ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শতবর্ষে পদার্পণ করা বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় এ বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্ব দিয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশেষ মর্যাদা সম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। এখন তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাবার এই অসম্পন্ন কাজ সম্পন্ন করবেন বলে আশা করছি।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ (প্রশাসন) এবং অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল (শিক্ষা) এবং আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় ওয়েবিনারে অংশগ্রহণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট https://du.ac.bd এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইসিটি সেলের ফেসবুক পেজে facebook.com/ICTCellDU সরাসারি সম্প্রচার করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

ইএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]