দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানি: রাবি শিক্ষককে ৬ বছর নিষিদ্ধের সুপারিশ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৪:৫০ পিএম, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগের সত্যতা মেলায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক বিষ্ণু কুমার অধিকারীকে শিক্ষা কার্যক্রম থেকে ছয় বছরের জন্য নিষিদ্ধ করার সুপারিশ করা হয়েছে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে যাওয়ার আগে তাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৫০৪তম সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ওঠা যৌন হয়রানির অভিযোগের সত্যতা সংক্রান্ত প্রতিবেদন আজকে সিন্ডিকেটে উপস্থাপিত হয়। সেখানে ওই শিক্ষককে ক্লাস-পরীক্ষাসহ সব ধরনের শিক্ষা কার্যক্রম থেকে ছয় বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা, পাশাপাশি তার ইনক্রিমেন্ট বন্ধ এবং আগামী ১০ বছর কোনো প্রমোশন আবেদন করতে পারবেন না মর্মেও সুপারিশ করা হয়েছে। এটি বাস্তবায়নের আগে তাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। আগামী সিন্ডিকেটে বিষয়টি আবারও তোলা হবে।’

এর আগে ২০১৯ সালের ২৫ ও ২৭ জুন ইনস্টিটিউটের দুই ছাত্রী বিষ্ণু কুমার অধিকারীর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে পরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ জমা দেন। একই বছরের ২ জুলাই শিক্ষার্থীদের অভিযোগ আমলে নিয়ে ইনস্টিটিউটের সব একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ওই শিক্ষককে সাময়িক অব্যাহতি দেয় কর্তৃপক্ষ।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন সেলে পাঠানো হয় অভিযোগটি। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করেন সেলের সভাপতি ও প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. রেজিনা লাজ, রসায়ন বিজ্ঞান বিভাগের প্রয়াত অধ্যাপক ড. আখতার ফারুক ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক হাবিবুর রহমান।

তদন্ত কমিটির প্রধান প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. রেজিনা লাজ বলেন, ‘তদন্তে অভিযোগটির সত্যতা পেয়েছি। মাস দেড়েক আগে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়। আজকের সিন্ডিকেটে বিষয়টি ওঠার কথা ছিল। তবে কী সিদ্ধান্ত হয়েছে সে বিষয়ে এখনো জানি না।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিষ্ণু কুমার অধিকারী জাগো নিউজকে বলেন, যেহেতু আমাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লিখিতভাবে কিছু জানায়নি, সেহেতু আমি এ বিষয়ে এখনো কিছু বলতে পারব না। আমি অফিসিয়াল কিছু দেখব, তারপর বলতে পারব।

সালমান শাকিল/এসজে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]