দল পরিচালনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়কের অনীহা!

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৯:১০ পিএম, ০৬ এপ্রিল ২০২১
ফাইল ছবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে দল পরিচালনায় ‘অসহযোগিতা ও অনীহার’ অভিযোগ উঠেছে। দলের আহ্বায়ক কমিটির দুই-তৃতীয়াংশ সদস্য তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলেছেন।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) আহ্বায়ক কমিটির ২০ সদস্যের মধ্যে ১৬ জন একটি বিবৃতি দিয়েছেন। ওই বিবৃতি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের অন্তত সাত শতাধিক শিক্ষকের ইমেইলে পাঠানো হয়েছে।

বিবৃতিতে আহ্বায়ক কমিটি ১৬ সদস্য অভিযোগ করেছেন, প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক নির্বাচিত হওয়ার পর অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমান গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ইস্যুতে আহ্বায়ক কমিটির সভা ডাকতে গড়িমসি করেন। আর সভা করলেও সেখানে সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত বিভিন্ন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে অনীহা দেখা যায়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে উপাচার্যের বিরুদ্ধে ওঠা বিভিন্ন অনিয়মমের যৌক্তিক প্রতিবাদ করার বিষয়েও তিনি নিশ্চুপ থাকেন।

এতে আরও বলা হয়, সবশেষ বর্তমান সরকার ও দেশকে অস্থিতিশীল করতে জাতীয় পর্যায়ে হেফাজতে ইসলামের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের বিষয়ে দলীয় অবস্থান নির্ধারণ করার জন্য আলোচ্যসূচির এক নম্বরে রেখে সভা আহ্বানের জন্য আহ্বায়ক ড. হাবিবুরকে চিঠি দেয়া হলেও তাতে সম্মতি দেননি তিনি। আহ্বায়ক কমিটির সদস্যরা অনলাইনে সভা আয়োজনের চেষ্টা করলেও তাতেও রাজি হননি আহ্বায়ক।

“আর কোনো সভা করবেন না জানিয়ে আহ্বায়ক ড. হাবিবুর রহমান বলেছেন, ‘তোমাদের ক্ষমতা থাকলে যা করার তাই কর’ বলে অভিযোগ সদস্যদের।’

জানতে চাইলে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আমি আহ্বায়ক কমিটির সদস্যদের বিবৃতি এখনও পড়িনি। যেহেতু তারা লিখিত দিয়েছেন, আমি লিখিতভাবেই এর ব্যাখ্যা দেব।’

আহ্বায়কের বিরুদ্ধে দেয়া বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন অধ্যাপক ড. তারিকুল হাসান, ড. জাহাঙ্গীর আলম সাউদ, সৈয়দ আলী রেজা অপু, আ ন ম ওয়াহিদ, শহিদুল আলম, ড. প্রদীপ কুমার পাণ্ডে, তানজিমা জোহরা হাবিব, ড. জাহানুর রহমান, ড. এক্রাম উল্লাহ, মিজানুর রহমান, শাহরিয়ার জামান, ওমর ফারুক সরকার, আব্দুল্লাহ আল মামুন, নাসিমা আখতার, আসাবুল হক, ড. আবু জাফর তৌহিদুল ইসলাম।

জানা গেছে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ২১ সদস্যের মধ্যে আহ্বায়কসহ ৪টি পদে নির্বাচিত হন বর্তমান উপাচার্যপন্থীরা। বাকি ১৬টি পদে নির্বাচিত হয়েছেন উপাচার্যবিরোধীরা। নির্বাচনের এক মাস না পেরোতেই আহ্বায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুললেন খোদ আহ্বায়ক কমিটির সদস্যরাই।

সালমান শাকিল/এএএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]