রাবির অ্যাডহক নিয়োগ তালিকায় আরেক উপাচার্যের জামাতা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১০:৩৯ পিএম, ০৭ মে ২০২১ | আপডেট: ১১:৪৭ পিএম, ০৭ মে ২০২১
ফাইল ছবি।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সদ্য বিদায়ী উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের মেয়াদের শেষদিনে ১৩৭ জনকে অ্যাডহক (অস্থায়ী) ভিত্তিতে নিয়োগ দিয়েছেন। এরমধ্যে নয়জন শিক্ষক পদে নিয়োগ পেয়েছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক সৈয়দ শামসুদ্দিন আহমদের জামাতাও। সৈয়দ শামসুদ্দিন রাবির ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক।

তার জামাতা ড. শাহরিয়ার মাহবুব নিয়োগ পেয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিভাগের প্রভাষক পদে। শিক্ষক নিয়োগ তালিকার ৪ নম্বরে ড. শাহরিয়ারের নাম রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (৬ মে) উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের মেয়াদের শেষদিনে ৯ জন শিক্ষককেও অ্যাডহকে নিয়োগ দেয়া হয়। তার মধ্যে তালিকার প্রথমে নাম রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ও মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক নেতা তাসকীন পারভেজের। ফিশারিজ বিভাগের প্রভাষক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তিনি। বাকি ৭ জনের মধ্যে ৪ জনই শিক্ষক পরিবারের। কেউ শিক্ষকের ছেলে, কেউ স্ত্রী কেউবা আবার শিক্ষকের জামাতা।

শিক্ষক পরিবারের থেকে নিয়োগ পাওয়াদের মধ্যে ২ জন আবাসিক শিক্ষিকাও রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা মনোবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি ড. নূরে আলমের স্ত্রী মাহফুজা আক্তার নিয়োগ পেয়েছেন বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা হলের সহকারি আবাসিক শিক্ষিকা হিসেবে। কর্মকর্তা নিয়োগের তালিকায় ৮ নম্বরে আছে তার নাম।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জীব ও ভূবিজ্ঞান অনুষদের সেকশন অফিসার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মনোবিজ্ঞান বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আব্দুল লতিফের ছেলে আলীম আল আফরোজ। তালিকার ৯ নম্বরে আছে তার নাম।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (৬ মে) নিয়োগের তথ্য জানাজানি হলেও নিয়োগের কাগজে তারিখ ৫ মে (বুধবার) উল্লেখ করা হয়। সেখানে স্বাক্ষর করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন উপ-রেজিস্ট্রার। নিয়োগের তালিকায় রয়েছে শিক্ষক পদে ৯ জন, কর্মকর্তা পদে ১৯ জন, তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী পদে ৮৫ জন, চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী পদে ২৪ জনের নাম। তবে উপাচার্যের এসব নিয়োগ অবৈধ বলে উল্লেখ করে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সালমান শাকিল/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]