পরিবেশ দিবসে চবি সায়েন্টিফিক সোসাইটির ভিন্নধর্মী আয়োজন

‘বাস্তুতন্ত্র পুনরুদ্ধার’ প্রতিপাদ্যে প্রতি বছরের মতো এবারও ৫ জুন সারা বিশ্বব্যাপী পরিবেশগত সমস্যা নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পালিত হয়েছে বিশ্ব পরিবেশ দিবস।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) বিজ্ঞানভিত্তিক সংগঠন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্টিফিক সোসাইটিও (সিইউএসএস) দিবসটি গুরুত্বের সঙ্গে উদযাপন করেছে ‘Virtual Environment Fest-2021’ আয়োজনের মাধ্যমে।

এই ভিন্নধর্মী আয়োজনের অংশ হিসেবে তরুণ প্রজন্মের অবাধ কল্পনাশক্তিকে পরিবেশের উন্নয়নে কাজে লাগানোর উদ্যেশ্যে সংগঠনটি পরিচালনা করেছে কল্পনা, পুনরুদ্ধার, পুনরুজ্জীবন প্রতিযোগিতা।

যেখানে প্রতিযোগীরা পুনরায় কল্পনা, পুনরুদ্ধার, পুনরুজ্জীবন পদ্ধতি বাস্তবায়নের মাধ্যমে কীভাবে পরিবেশকে পুনরুদ্ধার করা যায় সে বিষয়ে ছবি ও ভিডিওর মাধ্যমে অনন্য আইডিয়া উপস্থাপন করেছেন। এই প্রতিযোগিতায় প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

এছাড়াও সিইউএসএস সাম্প্রতিক বিশ্ব-পরিবেশ, বাংলাদেশের বিপন্ন প্রাণীকুল, বাংলাদেশের পরিবেশ, ওষধি গাছ এবং ম্যানগ্রোভ সুন্দরবন ইত্যাদি বিষয়ে কুইজ এবং ‘করোনা মহামারী কি আমাদের বাস্তুতন্ত্র পুনরুদ্ধার করছে?’ শীর্ষক ওয়েব সেমিনার আয়োজন করে।

আয়োজিত সেমিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চবির বন ও পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক মো. হুমায়ুন কবির।

সংগঠনটির উপদেষ্টা ও চবি জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. লায়লা খালেদা বাস্তুতন্ত্র পুনরুদ্ধারের উপর গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন।

সংগঠনটির সহ-সভাপতি তাহমিদা শামসুদ্দীন বলেন, আমরা চাইলেই পরিবেশের যেসব উপাদানের অবক্ষয় হয়েছে এবং হচ্ছে তা সংরক্ষণ করতে পারি। সেটি হতে পারে আমাদের ছোট্ট একটি অভ্যাস পরিবর্তনের মাধ্যমে। যেমন, যেখানে সেখানে প্লাস্টিকের বস্তু, পলিথিন, অপচনশীল জিনিস ইত্যাদি ফেলা থেকে নিজেকে বিরত রাখা বা প্রত্যেক মাসে একটি করে গাছ লাগানো।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নওশিন বিনতে জামাল জুঁই বলেন, এখনই সময় বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে চারপাশকে সবুজে রূপান্তরিত করার। ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করে মাটি, বায়ু, পানিকে দূষণের হাত থেকে রক্ষা করার। একমাত্র আমরাই পারি পরিবেশের সবুজ-সতেজ রূপ ফিরিয়ে আনতে।

সংগঠনের প্রকাশনা ও প্রচারণা সম্পাদক হুমায়রা ফেরদৌসী বলেন, সুস্থ-সুন্দর পরিবেশ ছাড়া মানুষের অস্তিত্ব হুমকিতে পড়বে। অথচ এই পরিবেশ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় মানুষের দ্বারাই। নিজেদের বেঁচে থাকার জন্য পরিবেশকে রক্ষা করা আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব।

রোকনুজ্জামান/এসএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]