উপাচার্য নিয়োগে দক্ষ গবেষকের প্রাধান্য চায় শিক্ষার্থীরা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৭:০৩ পিএম, ০৮ জুন ২০২১

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্য নিয়োগ হয়নি এখনও। কে হচ্ছেন উপাচার্য এ নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে আলোচনা-সমালোচনার যেন কমতি নেই। তবে শিক্ষার্থীদের চাওয়া উপাচার্য নিয়োগে দক্ষ গবেষককে প্রাধান্য দেয়া হবে। এ নিয়ে কয়েকজন শিক্ষার্থীর ভাবনা তুলে ধরা হলো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ফৌজিয়া ফারিয়া বলছেন, ব্যক্তি হিসেবে একজন আদ্যোপান্ত স্বচ্ছ, সুশিক্ষিত, দূরদর্শী এবং আলোকিত মনের মানুষকে আমি আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে আসীন দেখতে চাই। একই সাথে যিনি হবেন পেশাগত দায়িত্ব পালনে শতভাগ সৎ।

তিনি বলেন, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিশ্ববিদ্যালয় হলেও কিছু অজ্ঞ, দুর্নীতিপরায়ণ মহলের কবলে পড়ে এর এতদিনের গুণগত মান এবং সুনাম হারাতে চলেছে। সাবেক উপাচার্যের মেয়াদকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অন্ধকার যুগের সমানই ছিল বলা যায়। এ দীর্ঘ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে বৃহৎ অঙ্কের বাজেট পাশ হলেও আমরা কোনো দৃশ্যমান প্রকৃত উন্নয়ন দেখতে পাইনি। বরং দেখা গেছে গবেষণা খাতে উল্লেখযোগ্য বিদ্যায়তনের নামগুলির তলায় পড়ে আছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী হিসেবে আমি উপলব্ধি করি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মানোন্নয়নের গুরুদায়িত্ব অর্পিত হয় এর সর্বোচ্চ অভিভাবকের ওপর। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে উপাচার্যের ওপর। তাই আমি চাই হবু নিয়োগপ্রাপ্ত উপাচার্য হিসেবে যিনি দায়িত্ব পাবেন তিনি যেন শিক্ষানুরাগী, গবেষণাবান্ধব এবং শিক্ষার্থীবান্ধব হন।

ফারিয়া বলেন, এমন একজনকে চাই যিনি জ্ঞানের দৃষ্টি দিয়ে শিক্ষার্থীদের আলোর পথে চলতে নির্দেশনা দিতে পারবেন। কোনো দল, মতের ওপর ভিত্তি করে নয় বরং যোগ্যতাবলে এমন একজন শিক্ষককে নিয়োগ দেয়া উচিত যিনি নিজেও সমঅধিকার চর্চা করবেন।অভিভাবক হিসেবে যেন তারই দেখানো পথে হেঁটে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সগৌরবে উজ্জ্বল হতে পারে।

কোন দলের বা মতের উপর প্রতিষ্ঠিত কোনো ব্যক্তিকে উপাচার্য হিসেবে দেখতে চাই না জানিয়ে জাহেদ ইমাম শুভ বলেন, এমন একজন উপাচার্য চাইব সবার আগে তাকে হতে হবে শিক্ষার্থীবান্ধব। যার কাছে শিক্ষার্থীদের বিপদ-আপদ, সমস্যা-সম্ভাবনা সবকিছু তার নিজের সন্তানের মতোই হবে।

তিনি বলেন, সকল শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে থাকবে তার সুসম্পর্ক। দলমত সবার ঊর্ধ্বে শিক্ষার্থীদের ই প্রাধান্য দেবে এমন উপাচার্য চাই। কারণ এক্ষেত্রে তারা শিক্ষার্থীদের কথা না ভেবে দলের কথাই ভাববে। এতে শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট হবে। সর্বোপরি একটি পরিপাটি বিশ্ববিদ্যালফয় গড়ে তুলবেন। শুভ বিশ্ববিদ্যালয়টির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী।

তবে আইন বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী কে এ এম সাকিবের চাওয়া একজন দক্ষ প্রশাসক, শিক্ষাবিদ এবং ছাত্র বান্ধব উপাচার্য। যিনি শিক্ষার্থীদের সকল অধিকার রক্ষায় হবেন বদ্ধ পরিকর। যিনি দুর্নীতি আর অনিয়মের ঊর্ধ্বে থাকবেন এবং প্যানেলের মাধ্যমে অধ্যাদেশ অনুয়ায়ী নিয়োগপ্রাপ্ত হবে। যোগ করেন সাকিব।

তিনি বলেন, দলীয় লেজুড়বৃত্তির ঊর্ধ্বে থাকবেন এবং এবং শিক্ষাকে গবেষণামুখী করবেন। এমন একজন উপাচার্য চাই যিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবেন। যিনি প্রশাসনিক ব্যক্তি হিসেবে নয় একজন শিক্ষক হিসেবে ছাত্রদের দুঃখ দুর্দশা বুঝবেন এবং পাশে থাকবেন। নিয়মানুবর্তিতায় নিজের দায়িত্ব পালন করবেন। সর্বোপরি যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মঙ্গল সাধিত হবে।

সালমান শাকিল/এমআরএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]