গোল্ড বাংলাদেশের ‘দুই বাংলার সম্প্রীতি বিতর্ক’

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৯:০৮ এএম, ২০ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৯:০৯ এএম, ২০ জুন ২০২১

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্ক সংগঠন গ্রুপ অব লিবারেল ডিবেটার্স বাংলাদেশের (গোল্ড বাংলাদেশ) আয়োজনে প্রথমবারের মত দুই বাংলার সম্প্রীতি বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে এ বিতর্কের বিষয় ছিল, ‘৪৭’এর কাঁটাতার সীমানারই বিভাজক, সংস্কৃতির নয়।’

শনিবার (১৯ জুন) রাতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্ক দলের মধ্যে সম্প্রীতি বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়। সনাতনী ধারার এ বিতর্কে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতার্কিক শাশ্বতিক চ্যাটার্জি, রূপক আচার্য্য এবং ঈশ্বর দাস বিতর্কের পক্ষে অংশগ্রহণ করেন।

বিপক্ষ দলে অংশ নেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এবং গোল্ড বাংলাদেশের বিতার্কিক সাওদা জামান রিশা, শামীমা আফরোজ এবং মামুনুজ্জামান স্নিগ্ধ।

বিতর্কে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরিচালক শাহনাজ রানু। এতে বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মামুন আব্দুল কাইউম এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিবেট কমিটির প্রাক্তন সম্পাদক অদ্বিতীয়া মাইতি।

দুই দলের বক্তারাই স্ব-স্ব অবস্থানে তাদের জোরালো যুক্তি তুলে ধরেন। বিতর্কে বলা হয়—সত্যিকার অর্থেই ভারত বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন সময়ে পরম মিত্র হিসেবে কাজ করছে। বিশেষ করে শিক্ষা, সংস্কৃতি, শিল্পকলা, সম্প্রীতির ক্ষেত্রে ভারত-বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধুত্ব আগামীতে আরও দৃঢ় হবে। গত ৭৩ বছরে সীমানা বা অবস্থান পরিবর্তন হলেও সংস্কৃতির পরিবর্তন এতোটা সহজ নয়।

বক্তারা আরও বলেন, ‘সেক্ষেত্রে দু’দেশের মধ্যে বিবাদমান কিছু চুক্তির বাস্তবায়ন এই সংস্কৃতির মেলবন্ধনকে আরও সুদৃঢ় করতে পারে।’

উল্লেখ্য, মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিতর্ক সংগঠন (গোল্ড বাংলাদেশ) বছরব্যাপী বিতর্কসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে। আয়োজকরা জানিয়েছে, দ্রুতই তাদের একটি আন্তর্জাতিক বাংলা বিতর্ক আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে।

সালমান শাকিল/এএএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]