চাঁদাবাজির সময় হাতেনাতে ধরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ‘রাজা’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৫৬ পিএম, ২৬ জুলাই ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এলাকায় চাঁদাবাজি করার সময় হাতেনাতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ‘রাজা’ খ্যাত ছাত্রলীগ নেতা আকতারুল করিম রুবেলকে (২৪) আটক করা হয়েছে।

সোমবার (২৬ জুলাই) সকালে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের এক কর্মচারীর কাছে চাঁদা দাবি এবং মারধরের সময় তাকে আটক করা হয়। আটকের পর এই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে চালান করা হয়েছে।

গ্রেফতারের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুদ হাওলাদার।

গ্রেফতার হওয়া আকতারুল করিম রুবেল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হল শাখা ছাত্রলীগের উপ-দফতর সম্পাদক ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ভর্তি হলেও তিনি ড্রপআউট হয়ে যান। তার বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মাদক ও চাঁদাবাজির একাধিক মামলা রয়েছে।

গ্রেফতার আকতারুল করিম রুবেলের বিরুদ্ধে মাদক বিক্রি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এলাকায় মাদকসেবন ও চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। সে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের স্বাধীনতা জাদুঘরের পাশে অবস্থিত গ্লাস টাওয়ারের নিচে সাধারণত অবস্থান করে। আশেপাশের এলাকায় সে ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের রাজা’ হিসেবে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে এলাকায় কয়েকটি ‘অপরাধী’ গ্রুপ নিয়ন্ত্রণ করার অভিযোগ আছে।

মামলার এজাহারে শাহবাগ থানায় শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের ওয়ার্ড বয় মো. মনির হোসেন উল্লেখ করেন, সকালে আমি ও আমার সহকর্মী মো. সোহেল ও হারুন নাস্তার জন্য হাসপাতাল থেকে হোটেলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হই। জরুরি বিভাগের সামনে পৌঁছালে আকতারুল করিম রুবেল ও তার সহযোগীরা আমার গতিরোধ করে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন।

তিনি বলেন, আমি চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে রুবেল ও তারা সঙ্গীরা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে কাঠ ও রড দিয়ে আমার হাত, পা, মাথা ও ঘাড়সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে সজোরে আঘাত করেন। এছাড়াও কিল, ঘুষি ও লাথি দিয়ে মারাত্মক জখম করেন। আমার সহকর্মীরা এগিয়ে গেলে তাদেরও কাঠ ও রড দিয়ে পিটিয়ে আঘাত করে।

তখন আমাদের চিৎকারে হাসপাতাল থেকে অন্য কর্মচারীরা বের হয়ে রুবেলকে ধরতে পারলেও তার সঙ্গে থাকা বাকিরা পালিয়ে যান। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে রুবেলকে আটক করে।

এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুদ হাওলাদার জাগো নিউজকে বলেন, হামলার ঘটনায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে চালান করে দেয়া হয়েছে।

এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]