মেসের সিট দখল নিয়ে ইবি শিক্ষার্থীদের মারামারি

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১১:০৪ এএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

মেসের সিট দখল নিয়ে বিরোধের জেরে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটার দিকে ত্রিবেনী রোডে এ ঘটনা ঘটে। মারামারিতে জড়িত শিক্ষার্থীরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রথমবর্ষের শিক্ষার্থী। পরে মেস মালিক ও সিনিয়র শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে বিষয়টি সমাধান হয়।

স্থানীয়রা জানান, ত্রিবেণী রোডের স্থানীয় একটি মেসে অবস্থান করতেন কয়েকজন শিক্ষার্থী। করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের পর অনেকেই বাড়ি চলে যান। এসময় ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ধ্রæবের রুমে কিছু দিনের জন্য ওঠে তার বন্ধু একই বিভাগের সাকিব। তবে পাশের রুম খালি হওয়ায় তারা দুজন সেই রুমে উঠতে চায়। মেসমালিক এরশাদ এতে রাজি হননি। তিনি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ফারহান সেলিমকে রুম ভাড়া দেয়ার কথা জানান। বিষয়টি জানার পর সাকিব ও তার বন্ধুরা ফারহান ও তার বন্ধুদের ওপর চড়াও হয়। এনিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

jagonews24

স্থানীয়রা আরও জানান, বিকেলে ফারহান ও তার বন্ধু মামুন আব্দুল্লাহ মেস থেকে বাজারের দিকে যাওয়ার সময় সাকিব ও তার বন্ধু হাফিজ তাদের সঙ্গে আবারও হাতাহাতি করে। পরে মেসমালিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে তার সঙ্গেও কথা কাটাকাটি হয় সাকিব ও হাফিজের। এসময় অন্যান্য স্থানীয়রা তাদের উপর চড়াও হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষার্থীরা বিষয়টি সমাধান করে।

ফারহান সেলিম বলেন, ‘মেসমালিক তাদের কাছে রুম ভাড়া দেয়নি বলে সকালে আমার রুমে ঢুকে মালিকের সামনে আমাদের চড়-থাপ্পড় মেরে যায়। বিকেলে বের হলে পুনরায় আমাদের মারধর করে।’

jagonews24

সাকিব হোসেন বলেন, ‘মেসমালিক আমাদের ভাড়া দিবে বলে কথা দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ওদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে ওরাই আমাদের ওপর আক্রমণ করে। আমরা নিজেদের রক্ষা করেছি মাত্র।’

মেস মালিক এরশাদ হোসেন বলেন, ‘সাকিবের বন্ধু চলতি মাস পর্যন্ত তার জন্য সিট ভাড়া রেখেছিল। তাই মাস শেষে তাকে সিট ছাড়তে বলি। অন্য রুম খালি হলে সেখানে আরেকটি ছেলেকে উঠানোর জন্য ফাইনাল করেছি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন শিক্ষার্থীদের সম্প্রীতি বজায় রাখার অনুরোধ জানান। এছাড়া বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

রায়হান মাহবুব/ এফআরএম/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]