দ্রুত ডাকসু নির্বাচনের আহ্বান নুরের

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ঢাবি
প্রকাশিত: ০৯:৩৩ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০২১

দ্রুত সময়ের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের আয়োজন করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) বিকেলে ঢাবির সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ আয়োজিত এক সমাবেশে এ দাবি জানান নুর।

নুরুল হক নুর বলেন, করোনার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নির্বাচন হয়েছে, কর্মচারী নির্বাচন হয়েছে। অনেক কিছু হয়েছে, কিন্তু ডাকসুর মেয়াদ শেষ হলেও নির্বাচন হয়নি। এতদিন মহামারির অজুহাত দেখিয়েছেন এখন সেটি শেষ, বিশ্ব এখন আগের মতোই উদ্যম গতিতে এগিয়ে চলছে। বিশ্ববিদ্যালয় খুলেছে, সবকিছু খুলেছে। দয়া করে ছাত্রদের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলবেন না। এ জাতিকে অসুস্থ ছাত্ররাজনীতির দিকে ফেলে দেবেন না। ডাকসু নির্বাচনের মাধ্যমে সুস্থ ধারার ছাত্ররাজনীতি বিকশিত হতে সহযোগিতা করুন। আপনাদের প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে, দ্রুত সময়ের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের আয়োজন করুন।

ছাত্র সংগঠনগুলোর উদ্দেশ্যে নুর বলেন, ডাকসু নির্বাচনের স্বার্থে যার যার জায়গা থেকে কথা বলুন। ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হয়েছে। অনেকে বলতে পারেন কি পেলাম কি হয়েছিল এ নির্বাচনে। আমি বলবো, ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন করার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, রীতিনীতি ও প্রশাসনের সঙ্গে নেতৃত্ব তৈরি করার জন্য একটা পথ তৈরি হয়েছিল। যেটি একটি বড় অর্জন ও পাওয়া বলে আমি মনে করি। ডাকসু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে ছাত্রদের জন্য বেশ কয়েকটি কাজ হয়েছে, যেটি অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই।

নুর বলেন, ডাকসু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটি প্রতিবাদী চেতনা, অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলা, নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার একটা প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল, ফলে ছাত্রদলের মতো বড় সংগঠন ১০ বছর ক্যাম্পাসে ছিল না। এখন কিন্তু তারা ক্যাম্পাসে মুভ করতে পারছে। এ যে একটি গণতান্ত্রিক ধারা, ছাত্র সংগঠনগুলো সহ-অবস্থান এটা কিন্তু ডাকসু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছে।

দ্রুত সময়ের মধ্যে আবরার হত্যার বিচার নিষ্পত্তির দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আবরারের বাবা বলেছেন তার সন্তানের মতো আর কোনো সন্তানকে যেন বিশ্ববিদ্যালয়ে জীবন দিতে না হয়। আমরাও বলবো, এ বিচার নিয়ে কোনো ধরনের নয়ছয় যেন না হয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে আবরার হত্যার বিচার নিষ্পত্তি করতে হবে। দায়ীদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত শাস্তিমূলক পদক্ষেপ নিতে হবে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক আব্দুল লতিফ মাসুম, আলোকচিত্রী শহিদুল ইসলাম, ছাত্র অধিকার পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক রাশেদ খান, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসান, বর্তমান সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদীব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসাইন ও যুব অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক আতাউল্লাহ।

এমএএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]