গুচ্ছ ভর্তি: পরীক্ষার্থীদের সুপেয় পানি দিলো শাবিপ্রবি ছাত্রলীগ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট
প্রকাশিত: ০২:০১ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২১

গুচ্ছ পদ্ধতিতে প্রথমবারের মতো একযোগে শুরু হয়েছে ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা। এর মধ্যে রোববার (১৭ অক্টোবর) শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয় ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা। দুপুর ১২টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১০টি ভবনে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষার দিন ভর্তিচ্ছুদের বিভিন্নভাবে সহায়তা করছে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সহায়তার উদ্দেশ্যে রোববার সকাল থেকেই ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নেন তারা।

শাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, ক্যাম্পাসের স্থায়ী তথ্যকেন্দ্র থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ, স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে সচেতনকরণ, মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ, তাৎক্ষণিক চিকিৎসা সেবা প্রদানে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের তত্ত্বাবধানে ‘মেডিকেল ক্যাম্প’ পরিচালনা, পরীক্ষাকেন্দ্র পরিচিতির জন্য সার্বক্ষণিক স্বেচ্ছাসেবক নিয়োজিত, কলমসহ আনুষঙ্গিক শিক্ষা উপকরণ বিতরণ, সুপেয় পানির ব্যবস্থা ও শিক্ষার্থীদের ব্যবহৃত কিন্তু পরীক্ষা কেন্দ্রে বহনে অনুপযোগী জিনিসপত্র রাখার ব্যবস্থা করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

স্থায়ী তথ্যকেন্দ্র থেকে সার্বিক মনিটরিংয়ের দায়িত্বে ছিলেন- শাখা ছাত্রলীগের সাবেক পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো. খলিলুর রহমান, উপ-দফতর সম্পাদক সজিবুর রহমান, উপ-ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক ইমরান আহমেদ চৌধুরী, কার্যনির্বাহী সদস্য আশরাফ কামাল আরিফ, উপ-গন যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক ফারহান রুবেল, উপ-সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন সীমান্ত, কার্যনির্বাহী সদস্য মাহবুবুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা সাব্বির হোসেন, তারেক হালিমী প্রমুখ।

jagonews24

তারা জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার্থীদের মতো গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার্থীদেরও সার্বিক সহযোগিতায় কাজ করছে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের যেকোনো সমস্যা সমাধানে স্বেচ্ছাসেবক টিম কাজ করে যাচ্ছে। অন্যান্য ইউনিটের পরীক্ষা দিনগুলোতেও এই সার্ভিস অব্যাহত থাকবে বলে জানান ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

‘এ’ ইউনিটে পরীক্ষার্থী ছিল মোট ৪ হাজার ৭১০ জন শিক্ষার্থী। এছাড়া ২৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিটে ১ হাজার ৯৬৫ জন এবং ১ নভেম্বর ‘সি’ ইউনিটে ৮৬৭ জন শিক্ষার্থী শাবিপ্রবির কেন্দ্রে পরীক্ষা দেবেন।

মোয়াজ্জেম আফরান/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]