৫৮৫ দিন পর খুললো শাবিপ্রবির হল, শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাস

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শাবিপ্রবি
প্রকাশিত: ১২:৪৪ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০২১

করোনা সংক্রমণের কারণে দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) সব আবাসিক হল খুলে দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচটি হলের গেট আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। হলে প্রবেশের সময় হলের বৈধ পরিচয়পত্র, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয়পত্র এবং করোনার টিকা গ্রহণের প্রমাণপত্র দেখিয়ে হলে প্রবেশ করেন শিক্ষার্থীরা। এসময় তাদের ফুল, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, খাবার ও মাস্ক উপহার দেওয়া হয়।

jagonews24

অন্যদিকে সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের টিভি রুমে শিক্ষার্থীদের প্রত্যাবর্তন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। হল প্রভোস্ট সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ সামিউল ইসলামের সভাপতিত্বে এতে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদসহ অন্যান্য হলের প্রভোস্ট ও সহকারী প্রভোস্টরা।

এসময় উপাচার্য বলেন, দীর্ঘ ৫৮৫ দিন পর সব হল খুলে দিয়েছি। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে হলে উঠতে হবে। হলে ওঠার ক্ষেত্রে অবৈধ কোনো শিক্ষার্থীকে স্থান দেওয়া হবে না। এ বিষয়ে সরকারের নির্দেশনা কঠোরভাবে মানা হবে।

jagonews24

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক জহীর উদ্দীন আহমেদ, প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আলমগীর কবীর, রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন প্রমুখ।

এদিকে দীর্ঘদিন পর হলে ফিরতে পেরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী সাজ্জাদ ভূঁইয়া জাগো নিউজকে বলেন, দীর্ঘ দেড় বছর পর আবার হলে উঠতে পারলাম। বিষয়টি আমাদের জন্য অবশ্যই আনন্দের। হল কর্তৃপক্ষের সুন্দর ব্যবস্থাপনা আমাদের মুগ্ধ করেছে। আমরা যারা হলে উঠেছি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবো।

jagonews24

বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের আবাসিক শিক্ষার্থী সাবিহা সায়মন পুষ্প জাগো নিউজকে বলেন, এ দিনটির জন্য অপেক্ষা করছিলাম। অবশেষে পেলাম। এখন মনে হচ্ছে পৃথিবীটাও সুস্থ, সব স্বাভাবিক।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রথমদিন শুধু স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীরা হলে প্রবেশ করবেন। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) স্নাতক চতুর্থ বর্ষ, বুধবার তৃতীয় বর্ষ এবং বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা হলে প্রবেশ করবেন।

মোয়াজ্জেম আফরান/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]