ঢাবিতে শাবি উপাচার্যের কুশপুতুল দাহ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:১৫ এএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের কুশপুতুল দাহ করেছে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন ও শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুর থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পৃথকভাবে প্রগতিশীল ছাত্রজোট, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ, ছাত্র ইউনিয়ন, ঢাবি ছাত্রদল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (বিসিএল) এবং ঢাকায় অবস্থানরত শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীরা হামলার প্রতিবাদে মশাল মিছিল ও সমাবেশ করেন। দিনভর প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন ও শিক্ষার্থীরা।

এসময় তারা শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা এবং শাবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ দাবি করে তার কুশপুতুল দাহ করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনা এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের পদত্যাগ দাবি করেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা। সন্ধ্যা ৬ টায় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের কুশপুতুল দাহ করার আগে বক্তব্য দেওয়ার সময় এ দাবি করেন তিনি। দুপুরে একই দাবি জানিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট।

সন্ধ্যায় ঢাকায় অবস্থানরত শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীদের ব্যানারে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়। মানববন্ধন ও সমাবেশে শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীরা। তারা বলেন, আমরা দেখেছি শিক্ষার্থীরা পুলিশের কাছে ফুল নিয়ে গিয়েছিল, অথচ পুলিশ তার জবাব দেয় গুলি করে। এই ন্যক্কারজনক ঘটনায় আমরা শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে সমবেত হয়েছি। আমরা চাই এ স্বৈরাচারী উপাচার্যের পদত্যাগ চাই। এটা আমাদের বর্তমান-সাবেক সকল শিক্ষার্থীর দাবি।

এসময় তারা- ক্যাম্পাসে হামলা কেন, প্রশাসন জবাব চাই; এক দুই তিন চার, ফরিদ তুই গদি ছাড়; প্রশাসনের স্বৈরাচার, মানি না মানি না; ভিসির পদত্যাগ, মানতে হবে, মানতে হবে; পতন! পতন! পতন চাই, বোমাবাজের পতন চাই; হল আমরা ছাড়বো না, ক্যাম্পাস কারও বাপের না ইত্যাদি স্লোগান দেন।

দুপুরে এক সমাবেশ থেকে ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক দীপক শীল বলেন, আন্দোলন শিক্ষার্থীদের গণতান্ত্রিক অধিকার। এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের যৌক্তিক দাবি জানাবে এবং প্রশাসন তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে সিদ্দান্ত নেবে। অথচ শাবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবির আন্দোলনে ছাত্রলীগ হামলা করেছে৷ পুলিশ ডেকে যেভাবে বেপোয়ারাভাবে লাঠিচার্জ করা হয়েছে৷ এটি অত্যন্ত লজ্জার। অবিলম্বে এর বিচার দাবি করছি।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স বলেন, একসময় শিক্ষকেরা শিক্ষার্থীদের জন্য নিজের রক্ত বিলিয়ে দিত। আজকে শিক্ষকেরা নিজেরাই নিজেদের অবরুদ্ধের জন্য দায়ী৷ যে উপাচার্য নিরাপত্তা দিতে পারে না, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিতে পারে না। অবিলম্বে এই ব্যর্থ উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করছি৷ শিক্ষার্থীদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ন্যাক্কারজনক হামলার দায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রীকেও নিতে হবে।

সন্ধ্যায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে ঢাবি ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আখতার হোসেন বলেন, সাস্টের শিক্ষার্থীদের চলমান যৌক্তিক আন্দোলনের সাথে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর পক্ষ থেকে আমরা একমত পোষণ করছি। এবং অনতিবিলম্বে ভিসির পদত্যাগ এবং প্রসাশনের ছত্রছায়ায় অন্যায়ভাবে শিক্ষার্থীদের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ নিশ্চিতকরণের দাবি জানাচ্ছি।

এমএএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]