ভেড়ার মাংসে মিলবে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৬:৫৩ পিএম, ২২ মে ২০২২

ভেড়ার মাংসে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধকরণে সফলতা পেয়েছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) একজন গবেষক। প্রায় দুই দশক ধরে গবেষণা চালিয়ে পশুপুষ্টি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল মামুন গবেষণা করে এ সাফল্য পেয়েছেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, অধিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ প্লানটেইন ঘাস ও রসুনের পাতা খাওয়ানোর ফলে ভেড়ার রক্তে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে সাত শতাংশ। আর মাংস উৎপাদন বেড়েছে ৫ থেকে ৭ শতাংশ।

রোববার (২২ মে) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পশুপালন অনুষদের সম্মেলন কক্ষে ‘অধিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ ভেড়ার মাংস’ শীর্ষক কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে এসব তথ্য তুলে ধরেন গবেষক ড. আল মামুন।

গবেষক আল মামুন বলেন, ‘ভেড়ার খাদ্য তালিকায় ঔষুধিগুণসম্পন্ন প্লানটেইন ঘাস ও রসুনের পাতার ব্যবহার করে ভেড়ার উৎপাদনশীলতা বেড়েছে। ঔষুধি ঘাসের উপাদান মাংসের স্বাদ ও গন্ধের পরিবর্তন এনেছে। প্লানটেইন ও রসুন পাতায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ভেড়ার বৃদ্ধি, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, রুমেন হিস্টোলজি, সিরাম অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং মাংসের গুনগতমানের ওপর যথেষ্ট প্রভাব ফেলেছে।’

ভেড়ার খাবারে অধিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ প্লানটেইন ঘাস ও রসুনের পাতা এ দুটি উপাদান ব্যবহার করে এ ফলাফল পেয়েছেন গবেষক আল মামুন।

ভেড়ার মাংসে মিলবে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট

তিনি জানান, এ উপাদান ব্যবহার করে ভেড়ার ২০ থেকে ২৬ শতাংশ শারীরিক বৃদ্ধি, ৫ থেকে ৭ শতাংশ মাংস উৎপাদন বৃদ্ধি এবং রক্তে ৭ শতাংশ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া শরীরের অভ্যন্তরীণ চর্বি এবং পেলভিক চর্বি যথাক্রমে ২৪ শতাংশ এবং ৫৬ শতাংশ কমে গেছে।

উপাদান দুটি ব্যবহারের ফলে ভেড়ার মাংসে ১৫ শতাংশ কোলেস্টরল কমিয়ে দিয়েছে এবং ৩০ শতাংশ ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড বাড়িয়ে দিয়েছে। এই ঘাস ব্যবহারে ভেড়া থেকে ১১ থেকে ১৪ শতাংশ কম মিথেন নির্গত হয়, যা পরিবেশে খুব গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলবে বলেও জানান বাকৃবির এ গবেষক।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন পশুপুষ্টি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. রাখী চৌধুরী। প্রধান অতিথি ছিলেন বাকৃবির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুড়িগ্রাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম জাকির হোসেন।

ভেড়ার মাংসে মিলবে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট

উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. খান মো. সাইফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিলেন ডিন কাউন্সিলের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এ কে ফজলুল হক ভূঁইয়া।

কর্মশালায় জানানো হয়, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। হৃদরোগ, চোখের বিভিন্ন রোগ ও স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ও ত্বকের সৌন্দর্য বজায় রাখতেও সহায়তা করে এটি।

অধ্যাপক ড. আল মামুন ২০০৪ সালে জাপানের ইয়াতো ইউনিভার্সিটিতে প্লানটেইন ঘাসের ওপর গবেষণা শুরু করেন। গবেষণায় সাফল্যের জন্য সেখানে প্রেসিডেন্ট ও ডিন আওয়ার্ডে ভূষিত হন তিনি।

এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]