রাবিতে শিক্ষিকা লাঞ্ছিত: অভিযুক্ত ছাত্রকে বহিষ্কার

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক রাবি
প্রকাশিত: ০৪:৫৮ পিএম, ২৯ জুন ২০২২

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আইন বিভাগের শিক্ষিকাকে লাঞ্ছনার অভিযোগে আশিক উল্লাহ নামের মাস্টার্সের এক ছাত্রকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বুধবার (২৯ জুন) দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটি ও সিন্ডিকেটের প্রতিবেদন সাপেক্ষে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

বহিষ্কার হওয়া আশিক আইন বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। তিনি শহীদ জিয়াউর রহমান হলের আবাসিক ছাত্র।

শৃঙ্খলা কমিটি ও সিন্ডিকেট প্রতিবেদনে বলা হয়ে, আশিক দীর্ঘদিন যাবত একাধিকবার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পরিবেশের বিঘ্ন ঘটাচ্ছেন। বিভিন্ন সময় তিনি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের হত্যার হুমকি দিয়েছেন। বুধবার আইন বিভাগের ক্লাসরুমে এক শিক্ষিকাকে লাঞ্ছনার পরিপ্রেক্ষিতে এবং ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলন ও দাবির মুখে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করার নির্দেশ দেওয়া হলো।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. হাসিবুল আলম প্রধান জাগো নিউজকে বলেন, এর আগেও এ ছাত্র বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা রকম মানহানিকর বক্তব্য দিয়ে বিভাগের ইমেজ নষ্ট করেছে। সে দীর্ঘদিন যাবত নানা বিশৃঙ্খলা করে আসছে। যার কারণে বিভাগের একাডেমিক কমিটির মাধ্যমে তার অপকর্মের বিরুদ্ধে একটি তদন্ত কমিটি করে আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে সুপারিশ পাঠিয়েছিলাম। এর আগের তদন্তের রিপোর্ট এবং আজকের বিষয়টি আমলে নিয়ে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

চতুর্থ বর্ষের ক্লাস চলাকালে আশিক উল্লাহ মাস্টার্সের পরীক্ষা নিয়ে কোনো সমস্যার কারণে ওই শিক্ষিকার সঙ্গে ঝামেলা শুরু করেন। তাকে চেয়ারম্যানের কাছে যাওয়ার কথা বলে ক্লাস থেকে চলে যাচ্ছিলেন শিক্ষিকা। এ সময় ক্লাসের দরজা বন্ধ করে শিক্ষিকাকে আটকে দেন আশিক। ক্লাসে থাকা অন্য শিক্ষার্থীরা শিক্ষিকাকে বের করে বিভাগের চেয়ারম্যানের রুমে পৌঁছে দিয়ে আসেন। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদেরও হুমকি দেন আশিক।

এ ঘটনার তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানিয়ে আশিককে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানিয়ে বিভাগের সামনে অবস্থান নেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পরে তারা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নেন। পরে দুপুরে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও দাবির মুখে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুষ্ঠু পরিবেশ রক্ষার্থে বিশ্ববিদ্যালয় শৃঙ্খলা কমিটি ও সিন্ডিকেট রিপোর্ট সাপেক্ষে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

মনির হোসেন মাহিন/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]