এলপিআরে গেলেন অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৩:২৩ পিএম, ০১ জুলাই ২০২২

অবসর প্রস্তুতিমূলক ছুটিতে (এলপিআর) গেলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) অর্থনীতি বিভাগের প্রথিতযশা অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) এ ছুটিতে যান তিনি। এর আগে গত ২৯ জুন ছিল তার শেষ কর্মদিবস।

শুক্রবার (১ জুলাই) নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করে বর্ণাঢ্য এ শিক্ষাবিদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমার ছাত্র-ছাত্রীদের এবং শ্রেণি পাঠদানকে অনেক মিস করবো। আমরা যখন বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকেছি সেসময়কার তুলনায় এখন ভবন সংখ্যা অনেক বেড়েছে কিন্তু ছাত্র-ছাত্রীদের আবাসন ব্যবস্থা খুবই খারাপ। শিক্ষক নিয়োগের অবস্থা ভালো না। বিভিন্ন ধরনের অস্বচ্ছতাও আগের তুলনায় অনেকটা বেড়েছে। এগুলোর অবসান হোক এটাই প্রত্যাশা করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভবন যতই বাড়ুক শিক্ষার পরিবেশ অবশ্যই ঠিক রাখতে হবে। শিক্ষকদের নিয়মিত ক্লাস নেওয়া, পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। যেহেতু এটা একটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় তাই তার সবার কাছে তার একটা জবাবদিহিতার জায়গাও থাকতে হবে।’

সাধারণত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পূর্ণ অবসর নেওয়ার আগে এ ছুটি দেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের এলপিআরের মেয়াদ একবছর হয়ে থাকে।

অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ ১৯৮২ সালে জাবির অর্থনীতি বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগেও শিক্ষকতা করেছেন।

বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সম্পদে জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনসহ যে কোনো নির্যাতনের বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকা পালন করেন এ অধ্যাপক। বাংলাদেশে মার্কসীয় অর্থনীতি ও রাজনৈতিক অর্থনীতি সংক্রান্ত আলোচনায় তিনি সবচেয়ে পরিচিত।

শিক্ষকতার পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী শোষণ, বৈষম্য, নিপীড়ন ও আধিপত্য বিরোধী আন্দোলন ও সংগ্রামে সক্রিয় অংশ নিয়ে আসছেন। যৌক্তিক আন্দোলনগুলোতে তিনি শিক্ষার্থীদের পাশে ছিলেন।

আনু মুহাম্মদ নামে সুপরিচিত হলেও এ অধ্যাপকের প্রাতিষ্ঠানিক নাম মুহাম্মদ আনিসুর রহমান। তিনি শিক্ষকতা জীবনে রাষ্ট্র ও সমাজজীবন নিয়ে লিখেছেন ছোট-বড় ৩৩টি বই।

মাহবুব সরদার/এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]