শেকৃবিতে কেমিক্যালের অভাবে বন্ধ ল্যাব পরীক্ষা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৪:৫৫ পিএম, ০১ জুলাই ২০২২

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি) কেমিক্যালের অভাবে ল্যাব পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ডিন কার্যালয়ের নোটিশ অনুযায়ী ৭৯ ব্যাচের কৃষি অনুষদের শিক্ষার্থীদের লেভেল-২, সেমিস্টার-১ ল্যাব পরীক্ষা ৩০ জুনের মধ্যে শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু বায়োকেমিস্ট্রি ল্যাব পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে হচ্ছে না বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২১ এপ্রিল ডিন সই করা এক নোটিশে লেভেল-২, সেমিস্টার-১ এর প্রথম ল্যাব পরীক্ষা নেওয়ার তারিখ নির্ধারণ করা হয় ১৯ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের পরীক্ষা শুরু হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের সদ্য বিদায়ী (৩০ জুন) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আশরাফী হোসাইন জাগো নিউজকে বলেন, ‘প্রয়োজনীয় পরীক্ষণ সামগ্রী (কেমিক্যাল) সাপ্লাই ছিল না। আমরা বায়োকেমিস্ট্রিতে সম্পূর্ণ কেমিক্যাল নিয়ে কাজ করি। পানি দিয়ে তো আর এক্সপেরিমেন্ট করা যায় না। আমাদের কেমিক্যাল দিলে ক্লাস-পরীক্ষা হবে, না দিলে হবে না।’

SAU-Lab-(1)

প্রয়োজনীয় কেমিক্যাল নেই কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কেমিক্যাল কিনতে বিভাগের কর্তৃত্ব থাকে না। যেসব স্যারেরা (কোষাধ্যক্ষ, প্রক্টর) বরাদ্দ দেন আমরা তাদের বলি। তারা বলেন প্রসিডিউরের মধ্যে আছে। প্রসিডিউর চলছে কিন্তু আমরা সময়মতো পেলাম না। কেন পেলাম না সে বিষয়ে এর চেয়ে বেশি কিছু জানি না।’

যথাসময়ে পরীক্ষা না হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে কৃষি অনুষদের ডিন অধ্যাপক পরিমল কান্তি বিশ্বাস বলেন, ‘পরীক্ষা যথাসময়ে কেন হচ্ছে না বিষয়টা এখন বললে তো হবে না। আজ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পরে দেখবো কেন পরীক্ষা যথাসময়ে হলো না।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. হারুনুর রশীদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘কেমিক্যাল কেনার বিষয়ে আমার জানা নেই। এ বিষয়ে চেয়ারম্যানই ভালো বলতে পারবেন।’

এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]