আগামীর শিশুরা পুতুল নয় রোবট নিয়ে খেলবে: মোস্তাফা জব্বার

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জবি
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০২২

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে শিশুদের গল্প-কবিতা ও ছড়া আবৃত্তি অত্যন্ত অনুপ্রেরণাদায়ক। এ প্রজন্ম, শিশু থেকেই বঙ্গবন্ধুকে বুকে ধারণ করছে, তাকে স্মরণ করেছে, আমাদের স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি শিশুদের এমন আগ্রহ, উদ্দীপনা ভবিষ্যতের জন্য একটা আশাজাগানিয়া বিষয়।

অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, আপনার সন্তানদের ইন্টারনেট ব্যবহারে নিরুৎসাহিত করবেন না। তাদের ইন্টারনেটের যথাযথ ব্যবহারে উৎসাহ দিতে হবে। প্রযুক্তির এ যুগে আগামীর শিশুরা পুতুল নয় রোবট নিয়ে খেলবে। এভাবেই দেশ এগিয়ে যাবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে উঠবে।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সদস্য সন্তানদের বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশবিষয়ক আবৃত্তির আসর ‘মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধু’ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, আমাদের শিশুরা যেভাবে ছড়া, কবিতা আবৃত্তির মাঝে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করছেন এটি অত্যন্ত আনন্দদায়ক বিষয়। এ ছোট্ট সোনামনিরা একমাত্র তাদের বাবা-মায়ের উৎসাহে বঙ্গবন্ধুকে জেনেছে, শিখতেছে। এ অভিভাবকদের প্রতি আমারের শ্রদ্ধা, যারা শিশুদের মনে বঙ্গবন্ধুকে ধারণ করা শিখিয়েছেন।

এসময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের (পিআইবি) মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ বলেন, ৭১ সালের স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র আমাদের তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি সেখানে প্রচারিত কবিতা, গান, আমাদের অনুপ্রাণিত করেছিল। বঙ্গবন্ধু নিজেও কবি-সাহিত্যিকদের ভালোবাসতেন।

তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার ৪৭ পরে এসেও বঙ্গবন্ধু হত্যার রহস্য উদঘাটন হয়নি। যারা হত্যা করছে, হত্যার নেপথ্যের ঘটনা সামনে আনতে হবে। এ তদন্ত না হলে জাতি অন্ধকারে থাকবে।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির আয়োজনে ডিআরইউ সাংস্কৃতিক সম্পাদক নাদিয়া শারমিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিআরইউ সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু। স্বাগত বক্তব্য দেন ডিআরইউ সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম হাবিব।

এমএএইচ/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।