ঢাবিতে দুর্গাপূজার ছুটিতে পরীক্ষার তারিখ, সমালোচনার মুখে পরিবর্তন

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১২:০৩ এএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
ছবি: সংগৃহীত

দুর্গাপূজার ছুটির মধ্যেও পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ।

পরে সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন মহলের আপত্তিতে সময়সূচি পরিবর্তন করা হবে বলে জানিয়েছে বিভাগের চেয়ারম্যান।

জানা গেছে, রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের মাস্টার্সের (এমএসএস ২০২১) প্রথম সেমিস্টারের সময়সূচি প্রকাশ করা হয়।

সময়সূচির সঙ্গে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘এতদ্বারা পরীক্ষার্থী ও সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানান যাইতেছে যে, পরীক্ষা কমিটির সভাপতি মহোদয়ের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ও বিভাগীয় চেয়ারম্যান মহোদয়ের সুপারিশক্রমে সেমিস্টার পদ্ধতি ২০২১ সনের এমএসএস প্রথম সেমিস্টার, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ের পরীক্ষার সময়সূচি নিচে দেওয়া হইল।’

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বাহালুল হক চৌধুরীর সই করা রুটিনে ১ অক্টোবর ও ৩ অক্টোবর পরীক্ষার তারিখ রাখা হয়। এ দুদিন দুর্গাপূজার যথাক্রমে ষষ্ঠী ও অষ্টমীর দিন। ফলে সময়সূচি প্রকাশের পর তা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, আগামী ১ অক্টোবর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত দুর্গাপূজার ছুটি। অথচ ওই সময়ের মধ্যে দুটি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে পরীক্ষা দেওয়া তাদের জন্য কষ্টসাধ্য।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী সৌম্য দ্বীপ সাহা কুনাল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এ নিয়ে পোস্ট দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘এমন প্রহসন মানা যায় না। এই হচ্ছে আমাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি। ইদানিং খুবই চর্চিত বিষয়ে পরিণত হয়েছে..। অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডারে ১ তারিখ থেকে ৫ তারিখ বন্ধ থাকার পরও কীভাবে দুর্গাপূজার ষষ্ঠী (১ অক্টোবর, শনিবার) ও অষ্টমীর (৩ অক্টোবর, সোমবার) দিন পরীক্ষার ডেট দেওয়া হয়? ও হ্যাঁ, আমরা তো সংখ্যালঘু, আমাদের হয়ে তো কথা বলার কেউ নেই বা বললেও আপনারা শুনবেন কেন?’

একই পোস্টে তিনি উল্লেখ করেন, ‘আমরা গত মে মাসেই আমাদের প্রথম সেমিস্টারের সব ক্লাস শেষ করেছি। তবে আজ কেন দীর্ঘ চারমাস পরে এসে দুর্গাপূজার দিনকে বেছে নিয়ে রুটিন প্রকাশ করা হলো। নীরব প্রতিবাদ জানাই..।’

জানতে চাইলে বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক রুহুল আমিন বলেন, ‘পরীক্ষা কমিটি মনে করেছে, ওই সেমিস্টারে কোনো হিন্দু শিক্ষার্থী নেই। আর পূজা ওইদিন সন্ধ্যায় হওয়ায় পরীক্ষা কমিটি এ তারিখ দিয়েছে। তবে আমি কথা বলে ৩ তারিখের (অক্টোবর) পরীক্ষা পরিবর্তন করে দেবো।’

আল-সাদী ভূঁইয়া/এএএইচ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।