বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

বিদেশ ভ্রমণে ভিসি-প্রোভিসিদের পূর্বানুমতি লাগবে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:১৮ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি), উপ-উপাচার্য (প্রো-ভিসি) ও কোষাধ্যক্ষদের বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে পূর্বানুমতি নিতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) অনুমতি পাওয়ার পর তাদের বিদেশ ভ্রমণে কোনো বাধা থাকবে না। ভ্রমণ শেষে দেশে ফিরে কর্মস্থলে যোগদানের বিষয়টিও লিখিতভাবে ইউজিসিকে জানাতে হবে।

ইউজিসি গত ১৪ সেপ্টেম্বর এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করেছে। এরই মধ্যে দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে নির্দেশনার বিষয়টি জানানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, প্রোভিসি ও ট্রেজারারের বিদেশ যাওয়ার জন্য ইউজিসির পুর্বানুমোদন নিতে হবে। বিদেশ হতে প্রত্যাবর্তনের পর কর্মস্থলে যোগদানের বিষয়টিও ইউজিসিকে লিখিতভাবে জানাতে হবে।

ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রপতি বা আচার্যের অনুমোদনক্রমে ভিসি, প্রোভিসি ও ট্রেজারার নিয়োগ দেওয়া হয়। অনেক প্রতিষ্ঠানের এ তিন স্তরের কর্তাব্যক্তিরা বিদেশ ভ্রমণের নামে দীর্ঘদিন দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণে যেমন বিলম্ব হচ্ছে, একাডেমি ও প্রশাসনিক কাজেও দেখা দিচ্ছে স্থবিরতা। বিশ্ববিদ্যলয় পরিচালনায়ও জটিলতা তৈরি হচ্ছে। এসব দিক বিবেচনা করে এ তিন পদে কর্মরত ব্যক্তিদের বিদেশ ভ্রমণের আগে কমিশন থেকে অনুমোদন নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউজিসি পরিচালক (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়) ওমর ফারুক সোমবার দুপুরে জাগো নিউজকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে উপাচার্য ও উপ-উপার্যের উপস্থিতি জরুরি। এসব পদে দায়িত্বরত অনেকে বিদেশে গিয়ে দীর্ঘদিন দেশে না ফেরায় শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় নানা সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এ কারণে তাদের বিদেশ ভ্রমণে পূর্বানুমতি নিতে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, ইউজিসি চেয়ারম্যান বরাবর এ সংক্রান্ত আবেদন করতে হবে। আবেদনের পর তিনদিনের মধ্যে সেটি অনুমোদন দেওয়া হবে। বিদেশ ভ্রমণ শেষে দেশে ফিরে কবে থেকে কর্মস্থলে যোগদান করেছেন, সেটিও লিখিতভাবে জানাতে হবে।

সম্প্রতি সরকারি কর্মকর্তাদের দক্ষতা বাড়ানোর কার্যক্রম অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে শর্তসাপেক্ষে বিদেশ ভ্রমণের শর্ত শিথিল করা হয়েছে। গত ১৯ সেপ্টেম্বর অর্থ মন্ত্রণালয়ের বাজেট বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বর্তমান বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে পরিচালন ও উন্নয়ন বাজেটের আওতায় এক্সপোজার ডিজিট/স্টাডি ট্যুর/এপিএ ও ইনোভেশনের আওতাভুক্ত বৈদেশিক ভ্রমণ/ওয়ার্কশপ/সেমিনারে অংশগ্রহণ বন্ধ থাকবে।

এমএইচএম/এমকেআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।