ছাত্রলীগ নয়, সাধারণ শিক্ষার্থীরা ছাত্রদলকে গণধোলাই দিয়েছে: সঞ্জিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৮ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এ হামলা করেছেন। তবে হামলায় ছাত্রলীগ জড়িত নয় বলে দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ দাবি করেন। বলেন, সাধারণ জনতা ও শিক্ষার্থীরা ছাত্রদলকে প্রতিহত করেছে।

ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস বলেন, ছাত্রদলের কর্মসূচি নিয়ে আমাদের কোনো মাথা ব্যথা নেই। আমরা শিক্ষার্থীদের দাবি নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করেছি। বাইরে মিথ্যাচার করা হচ্ছে যে তাদের ওপর ছাত্রলীগ হামলা করেছে। আসলে তারা (ছাত্রদল) যেখানে মার খায় সেখানেই মনে করে ছাত্রলীগ হামলা করেছে।

jagonews24

এর আগে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নতুন কমিটির ২০-২৫ জন নেতাকর্মী উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান। তারা নীলক্ষেতের মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণের সড়ক দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কার্যালয়ের দিকে যাত্রা শুরু করেন। এর মিনিট তিনেকের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মুনিম শাহরিয়ার মুনের নেতৃত্বে লাঠি, স্ট্যাম্প নিয়ে ছাত্রদলের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এ হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি বলেন, আমরা শুনেছি সাধারণ জনতা ও শিক্ষার্থীরা মিলে তাদের গণধোলাই দিয়েছে। এতে ছাত্রলীগের দায় কেন হবে? আমাদের নির্দেশনার বাইরে গিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কোনো কাজ করে না। ছাত্রদল মিথ্যাচার করছে, এখানে ছাত্রলীগের কেউ জড়িত ছিল না।

jagonews24

‘জয় বাংলা’ ‘জয় বঙ্গবন্ধু’ বলে ছাত্রদলের ওপর হামলা হয়েছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার কাছে তথ্য রয়েছে ছাত্রদলের ছয়টি গ্রুপ রয়েছে। তারা এটা করেছে প্রতিহিংসা মূলকভাবে। ‘জয় বাংলা’ ‘জয় বঙ্গবন্ধু’ যে কেউ বলতে পারে। ছাত্রদল করে বলে বলতে পারবে না এটা ঠিক নয়। ‘জয় বাংলা’ ‘জয় বঙ্গবন্ধু’ বলে ছাত্রলীগকে কলুষিত করার জন্য তারা নিজেরা নিজেরা হামলা করেছে।

হামলায় আহতরা হলেন ঢাবি ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, মহসিন মুন্সী, ফারহান আরিফ, মোহাম্মদ শাওন, আমিনুল ইসলাম এবং তারিকুল ইসলাম। ছাত্রলীগের আহতরা হলেন তন্ময় ও জুবায়ের হোসেন।

বিকেল ৫টার দিকে ছাত্রদলের আহত নেতাকর্মীদের ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়। পরে ‘উন্নত চিকিৎসা’র কথা বলে তাদের সেখান থেকে নিয়েও যাওয়া হয়।

আরএসএম/জেডএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।