সরকারি দফতরগুলো তাদের অগ্রগতির মূল্যায়ন করতে পেরেছে


প্রকাশিত: ০১:১৯ এএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৭
সরকারি দফতরগুলো তাদের অগ্রগতির মূল্যায়ন করতে পেরেছে

প্রধানমন্ত্রীর দর্শন উন্নয়নের গণতন্ত্র সাধারণ মানুষের কল্যাণ। আর এই উদ্দেশ্য পূরণে সারা দেশের সব জেলা ও উপজেলাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে উন্নয়ন মেলা। মেলায় সরকারি দফতরগুলো বর্তমান সরকারের আমলে তাদের অগ্রগতির মূল্যায়ন করতে পেরেছে।

খুলনা উন্নয়ন মেলার-২০১৭ এর সমাপণী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এভাবেই অভিমন ব্যক্ত করেন বক্তাগণ। সমাপনী অনুষ্ঠান বুধবার সন্ধ্যায় খুলনা সার্কিট হাউজ মেলা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুস সামাদ। সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান।

বক্তারা বলেন, সাধারণ মানুষের সামনে সেবামূলক কর্মকাণ্ড ও সাফল্য প্রচার করে তাদেরও উদ্বুদ্ধ করতে সচেষ্ট হয়েছে। যাতে সাধারণ মানুষ দেখে দেখে নিজেরাও সফল উদ্যোক্তা হতে পারে।

তারা আরও বলেন, যদি সঠিক আইডিয়া কাজে লাগানো যায় তবে প্রত্যেকেই উদ্যোক্তা হতে পারে। এ জন্য আমাদের ছেলেমেয়েদের বিশ্বমানের লেখাপড়া ও যোগ্যতার অধিকারী হতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার, খুলনা সিভিল সার্জন ডা. এসএমএ আব্দুর রাজ্জাক এবং পুলিশ সুপার নিজামুল হক মোল্যা। স্বাগত বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বিভিন্ন তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে বিগত ৮ বছরে উন্নয়নে বাংলাদেশের অবস্থান ব্যাখ্যা করেন।

মেলায় ১১০টি স্টলের মধ্যে ৫টি বিভাগকে পুরস্কৃত করা হয়। এর মধ্যে প্রথম হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ খুলনা, দ্বিতীয় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আয়কর, শুল্ক ও ভ্যাট প্রশাসন খুলনা, তৃতীয় কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ দফতরসমূহের স্টল, চতুর্থ ওজোপাডিকো খুলনা এবং পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে বিআরটিএ খুলনা।

আলমগীর হান্নান/বিএ