রাজবাড়ী শত্রুমুক্ত হয় আজ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ০৫:৫৮ এএম, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

রাজবাড়ী মূলত রেলের শহর হিসেবে পরিচিত। আর সেই সুবাদে এখানে ১৫ থেকে ২০ হাজার অবাঙালি বিহারীদের বসবাস ছিল। মূলত তাদের কারণেই সারাদেশ স্বাধীনের দুইদিন পর শত্রুমুক্ত হয় রাজবাড়ী। অবাঙালি এসব বিহারীদের বসবাস ছিল শহরের নিউ কলোনি, আঠাশ কলোনি, স্টেশন কলোনি ও লোকোশেড কলোনি এলাকায়।

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন তাদের প্রচণ্ড প্রভাব ছিল এই এলাকায়। সারাদেশ যখন স্বাধীনতার আনন্দে ভাসছে রাজবাড়ীতে তখনও চলছে অবাঙালি, বিহারী, পাকবাহিনী ও রাজকারদের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের তুমল যুদ্ধ।

পরে শত্রুমুক্ত করতে রাজবাড়ীসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তায় বিহারীদের সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধ হয়। তাদের পরাজিত করে রাজবাড়ীকে ১৮ ডিসেম্বর শত্রুমুক্ত ঘোষণা করা হয়। এসময় বেশ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন।

যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুল হাসান লালী, আব্দুস সামাদ, এসএম নওয়াব আলী ও গোলাম মোস্তফা গিয়াস জানান, রাজবাড়ীর বিভিন্ন স্থান ১৬ ডিসেম্বর বা তারও আগে শত্রুমুক্ত হলেও রাজবাড়ী শহরে তখনও চলছে অবাঙালি বিহারীদের সঙ্গে তুমুল যুদ্ধ। রেলের শহর হওয়ায় রাজবাড়ীতে বিহারী অবাঙালিদের বসবাস বেশি ছিল। যে কারণে তারা রাজাকারদের যোগসাজস ও পাক বাহিনীর সহায়তায় অস্ত্রসজ্জ নিয়ে শক্ত অবস্থানে ছিল।

রুবেলুর রহমান/এফএ/জেআইএম