এসআই বললেন, এমপির সুপারিশ ছাড়া মামলা করা যাবে না!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৪:৪৫ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৪:৪৬ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৮
এসআই বললেন, এমপির সুপারিশ ছাড়া মামলা করা যাবে না!

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় সুগন্ধা নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) জমি দখল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মিন্টু মিয়ার শ্বশুর স্থানীয় প্রভাবশালী আ. রশিদ খান পাউবো’র এ জায়গা দখল করেন।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও ড্রেজার জব্দ বা কোনো আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় বন্ধ হয়নি বালু উত্তোলন করে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৩ নম্বর বাগধা ইউনিয়নের বাগধা মৌজায় সুগন্ধা নদীর পশ্চিম তীরে পাউবো’র ৫০ শতক জমি ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে ভরাট করে দখলে নিয়েছে স্থানীয় ইউপি সদস্য মিন্টু মিয়ার চাচা শ্বশুর স্থানীয় প্রভাবশালী আ. রশিদ খান।

দখলদার রশিদ খান গত কয়েকদিন ধরে অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলন করে জমি ভরাট করে আসলেও পুলিশ প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

খবর পেয়ে বরিশাল পাউবো’র গৌরনদী সার্কেল উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. ইরফান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান ও করিম আলী, ও সার্ভেয়ার ফরিদ উদ্দিন গত বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থাল পরিদর্শন করেন।

এ সময় তারা অবৈধভাবে ড্রেজার দিয়ে নদী থেকে বালু উত্তোলন করে অবৈধভাবে পাউবো’র জমি ভরাট করতে দেখে থানায় খবর দেয়।

খবর পেয়ে এসআই মিজানুর রহমানসহ পুলিশ ঘটনাস্থালে যায়। এ সময় পাউবো’র কর্মকর্তারা স্থানীয়দের সামনে মামলা করবেন বলে পুলিশকে জানিয়ে অবৈধ ড্রেজার জব্দ করার জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেন।

পরে এসআই মিজানুর রহমান অবৈধ ড্রেজার জব্দ না করে উল্টো স্থানীয় এমপির সুপারিশ ছাড়া মামলা করা যাবে না মর্মে পাউবো’র উপ-সহকারী কর্মকর্তাদের জানিয়ে দেন। পুলিশের অপারগতার কারণে পাউবো ও স্থানীয়দের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে জানায় পাউবো’র কর্মকর্তারা।

এ ব্যাপারে পাউবো’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান জানান, এ জমি পানি উন্নয়ন বোর্ডের। অবৈধভাবে জমি বালু দিয়ে ভরাট করতে দেখে তিনি পুলিশকে খবর দিলেও পুলিশ এসে অবৈধ ড্রেজার জব্দ না করে অজ্ঞাত কারণে ফিরে যায়। বিষয়টি স্থানীয় এমপি’র এপিএসকে জানানো হয়েছে। দখলদারে বিরুদ্ধে পাউবো’র মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

এমপির সুপারিশ ছাড়া মামলা করা যাবে না-এর কারণ জানতে চাইলে এসআই মিজজানুর রহমান বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে আগৈলঝাড়ায় থানা পুলিশের ওসি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা বলেন, দখলদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে মামলা নেয়া হবে।

সাইফ আমীন/এএম/জেআইএম