ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে অবহেলায় নবজাতক মৃত্যুর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৩:২০ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৩:৩১ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০১৮

রাজশাহীতে ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অবহেলায় এক নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে সোমবার বেলা ১১টার দিকে হাসপাতালের পরিচালকের কক্ষ ঘেরাও করেন প্রসূতির স্বজনরা। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রসূতি জুলিয়া বেগম নগরীর আসাম কলোনি এলাকার নাজমুল হাসান টগরের স্ত্রী। হাসপাতালের ৪০৬ নম্বর ওয়ার্ডের ২ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন তিনি।

জুলিয়ার স্বামী টগর জানান, প্রসব বেদনা উঠলে শনিবার রাত ১২টার দিকে স্ত্রীকে রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেয়া হয়। চিকিৎসক আবেদা বেগমের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা শুরু হয় তার। রাতেই চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে মা ও সন্তান ভালো আছেন বলে জানান। রোববার ভোর ৬টার দিকে অপারেশনের (সিজার) সময় দেন। সব কিছু প্রস্তুত থাকলেও ভোরে আর হাসপাতালে আসেননি চিকিৎসক। নয় ঘণ্টা পর বিকেল ৩টার দিকে তার স্ত্রীর অপারেশন হয়। সময় মতো অপারেশন না হওয়ায় গর্ভে সন্তানের মৃত্যু হয় বলে দাবি করেন টগর।

এ ব্যাপারে কয়ক দফা চেষ্টা করেও মুঠোফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি চিকিৎসক আবেদা বেগমের। তবে তার সহকারী সাবিনা খাতুন বলেন, শাশুড়ির মৃত্যুর খবর পেয়ে ‘ম্যাডাম’ কুষ্টিয়া চলে যান। সকাল ৮টার দিকে ফোন করে বিষয়টি জানিয়েছেন। আগামী দু’দিন তিনি রোগী দেখবেন না বলেও কর্তৃপক্ষেকে জানিয়ে দেন।

জুলিয়ার চাচা ইমন শেখ জানান, নির্ধারিত চিকিৎসকের অনুপস্থিতিতে আরেকজন চিকিৎসককে দায়িত্ব দেয়ার কথা। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সেটি করেননি। তাদের অবহেলায় গর্ভে সন্তান মারা যায়।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে হাসপাতালের পরিচালক মামুনুর রশিদ কথা বলতে রাজি হননি।

তবে নগরীর শাহমখদুম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ গিয়ে উত্তেজিত লোকজনকে হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়। বেরিয়ে যাওয়ার সময় গেটের কাছে তারা জানালার কাঁচ ও ফুলের টব ভাঙচুর করে। পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

ফেরদৌস সিদ্দীকী/আরএআর/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :