বরিশালে অপহৃত ইমাম উদ্ধার হলো জঙ্গল থেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৪:২৬ পিএম, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় অপহরণের দুই দিন পর ছয়গ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজ মসজিদের ইমাম হাফেজ মো. ইমরানকে (২০) উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় এক অপহরণকারীকে আটক করা হয়।

সোমবার ভোর রাতে উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা ধরাধর দিঘীরপাড়ের জঙ্গল থেকে হাফেজ ইমরানকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এসময় অন্যরা পালিয়ে গেলেও অপহরণকারী রবিউল পাইককে (২৪) আটক করতে পেরেছে পুলিশ। রবিউল উপজেলার ছয়গ্রামের আবুল কাশেম পাইকের ছেলে।

উদ্ধার হওয়া ইমরান উপজেলার মোল্লাপাড়া গ্রামের হারুন হাওলাদারের ছেলে ও বেলুহার নেছারিয়া মাদরাসার দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র এবং ছয়গ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের মসজিদের ইমাম।

ইমরানের বাবা হারুন হাওলাদার জানান, শনিবার মুসল্লিরা ফজরের নামাজ পড়তে গিয়ে ইমাম ইমরানকে দেখতে না পেয়ে তার নিখোঁজের বিষয়টি ধরা পরে। ছেলে নিখোঁজের ঘটনায় তিনি (ইমরানের বাবা হারুন হাওলাদার) থানায় জিডি করেন।

ইমাম ইমরান জানান, শনিবার রাত দেড়টার দিকে তাকে মসজিদের পাশের রুম থেকে ডেকে তোলেন মধ্য বয়সী অজ্ঞাতনামা দুই ব্যক্তি। ইমরান দরজা খুললে তারা ইমরানকে চোঁখ মুখ বেঁধে তাদের সঙ্গে হেঁটে কিছুদূর নিয়ে গিয়ে পূর্ব থেকে অপেক্ষমান লোকজনের হাতে তুলে দেয়। অপহরণকারীরা ইমরানকে কিছুদূর নিয়ে একটি ভবনের দ্বিতীয় তলায় আটকে রাখে। ওই ভবনে নিয়ে অপহরণকারীরা ইমরানের মুখের কাপড় খুলে দিয়ে তাকে রডসহ লাঠিসোটা দিয়ে মারধর করে। এসময় অপহরণকারীদের তিন জনকে চিনতে পারে ইমরান। অনেক আকুতি মিনতি করার পরেও মারধর চলে অব্যাহত। এক পর্যায়ে ইমরানকে দিয়ে অপহরণকারীরা তার বাবা ও বোনের কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ হিসেবে দাবি করে ফোন করায়। দিনমজুর বাবার পক্ষে টাকা দেয়া সম্ভব নয় জানালে ইমরানকে অপহরণকারীরা ইয়াবা দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। মারধরের কারণে ইমরানের ডাক চিৎকারে ওই ভবনের মালিক ইমরানকে নিয়ে অপহরণকারীদের অন্য কোথাও চলে যেতে বলেন। এরপর অপহরণকরীরা ভোরে ইমরানকে নিয়ে একটি জঙ্গলে প্রবেশ করে। সেখান থেকে সোমবার ভোররাতে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।

আগৈলঝাড়া থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, জিডির সূত্র ধরে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে নিখোঁজের অনুসন্ধানে নামেন। অপরণকারীদের মুক্তিপণ হিসেবে দাবি করা মোবাইল ফোনের ‘ভয়েজ রেকর্ড’ স্থানীয়দের শোনান। ভয়েজ চিহ্নিত হওয়ার পর উদ্ধার তৎপরতায় নামে পুলিশ। সোমবার শেষ রাতে অবশেষে উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা ধরাধর দিঘীরপাড়ের জঙ্গল থেকে ইমরানকে উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় আটক করা হয় একজনকে। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। বাকি অপহরণকারীদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি।

সাইফ আমীন/এমএএস/আরআইপি