রাজশাহীর সার্ভে কলেজে ছাত্রলীগের হামলা-ভাঙচুর

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৭:১৬ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

রাজশাহী ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড সার্ভে ইনস্টিটিউটে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। তুচ্ছ ঘটনার জেরে মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় কলেজের অধ্যক্ষের কার্যালয়সহ দুটি কক্ষ ভাঙচুর করে হামলাকারীরা। ভেঙে ফেলা হয় বারান্দায় রাখা ফুলের টব। তছনছ করা হয় দফতরের বিভিন্ন কাগজপত্র। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ।

সার্ভে ইনস্টিটিউট রাজশাহী ও সরকারি সিটি কলেজ পাশাপাশি অবস্থিত। অভিযোগ উঠেছে, সিটি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নূর-ফয়সাল আহমেদ প্রত্যয়ের নেতৃত্বে এ হামলা হয়েছে।

সার্ভে ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান জানান, মঙ্গলবার দুপুরে তার কলেজের সহকারী স্টোর কিপার জাহাঙ্গীর আলম সিটি কলেজের সামনের একটি দোকানে মুঠোফোনে রিচার্জ করতে যান।

এ সময় দোকান মালিক মো. রানার সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রানা তার কর্মচারীকে মারধর করেন। এ সময় জাহাঙ্গীর আলম তার বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলে ঘোষণা দেন।

পরে জাহাঙ্গীর কলেজে চলে আসেন। এরপরই রানা ও প্রত্যয়ের নেতৃত্বে ৮-১০ জন যুবক কলেজে হামলা চালান। এ সময় হামলাকারীরা তার কক্ষের দরজা ভেঙে ফেলেন। কয়েকটি টবও ভাঙা হয়।

এছাড়া কলেজের অফিস কক্ষের আলমারি ও চেয়ার-টেবিল ভেঙে ফেলা হয়। তছনছ করা হয় বিভিন্ন কাগজপত্র। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান অধ্যক্ষ।

হামলার ব্যাপারে কথা বলতে নগরীর রাজারহাতা এলাকায় রানার ‘শান্তি এন্টার প্রাইজ’ নামের দোকানটিতে গেলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ছাত্রলীগ নেতা নূর-ফয়সাল আহমেদ প্রত্যয় হামলা চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তিনি হামলার ঘটনা দেখতে কলেজে গিয়েছিলেন। এর সঙ্গে তিনি জড়িত নয়।

এ বিষয়ে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমান উল্লাহ বলেন, খবর পেয়ে নগরীর মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির একটি দল কলেজে পাঠানো হয়। কিন্তু তার আগেই হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি।

ফেরদৌস সিদ্দিকী/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :