রংপুরে আরএফএল ডেকোরেটর চেয়ার নিবেদিত আনন্দমেলা শেষ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রংপুর
প্রকাশিত: ১০:১৫ এএম, ৩১ মার্চ ২০১৮

দেশের শীর্ষস্থানীয় বহুজাতিক শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের আরএফএল ডেকোরেটর চেয়ার নিবেদিত রংপুরে তিন দিনব্যাপী ‘আনন্দমেলা’ জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে।

মেলার শেষ দিন শুক্রবার দুপুরের পরপরই রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে আসতে থাকেন সর্বস্তরের মানুষ। সময় যতো গড়াতে থাকে ততই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে ওঠে মেলার মাঠ। বিকেলে ৪টা থেকে দর্শকদের উপচে পড়া ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে দায়িত্বে থাকা সদস্যদের।

কনসার্ট শুরুর নির্ধারিত সময়ের আগেই মঞ্চের সামনে অবস্থান নেয় দর্শকরা। স্থানীয় ব্যান্ডদলের গান, আমন্ত্রিত অতিথি শিশুদের নিয়ে প্রতিযোগিতা ও জিএম মনোয়ারের চোখ ধাঁধানো জাদুতে মুগ্ধ হয়ে ওঠেন দর্শকরা।

rangpur-(1).jpg

সন্ধ্যার পরপরই মঞ্চে আসেন এ সময়ের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সি। পৃথিবীর যতো সুখ যতো ভালোবাসা, পাগল তোর জন্যেরে পাগল এ মন, অনেক সাধনার পরে আমি পেলাম তোমার মনসহ বেশ কয়েকটি গান গেয়ে মাতিয়ে তোলেন দর্শকদের। এসময় ন্যান্সির সঙ্গে তাল মিলিয়ে উপস্থিত দর্শকরাও গেয়ে উঠেন।

সবশেষে মঞ্চে আসেন জনপ্রিয় বাউলশিল্পী কুদ্দুস বয়াতী। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধসহ দেশের কাজে বিভিন্ন সময় নিহত শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনার মধ্য দিয়ে শুরু করেন প্রিয় বাংলাদেশকে নিয়ে গান- ‘স্বাধীনতার বাংলাদেশ-মুক্তিযোদ্ধার বাংলাদেশ’, ‘দয়া করো আল্লাহ-দয়া করো আল্লাহ’। এরপর ‘গ্রামের নওজোয়ান হিন্দু মুসলমান’, ‘এই দুনিয়াটা পুতুল খেলা’সহ জনপ্রিয় কয়েকটি গান গেয়ে দর্শকদের প্রাণ জুড়িয়ে দেন তিনি।

সময় ফুরিয়ে আসলেও আসন ছেড়ে উঠতে চাইছিলেন না কেউই। প্রিয় এ শিল্পীকে কাছে পেয়ে উপস্থিত হাজারো দর্শকশ্রোতা প্রত্যেকেই যেন হয়ে ওঠেন কুদ্দুস বয়াতী। বেলা ৪টা থেকে শুরু হওয়া কনসার্ট শেষ হয় রাত ৯টায়।

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আনন্দমেলা ও কনসার্ট সুন্দর এবং নিরাপদে শেষ করতে পারায় আরএফএল প্লাস্টিক-এর সিনিয়র ব্র্যান্ড ম্যানেজার ইসফাকুল হক জেলা ও পুলিশ প্রশাসন, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিবেশক, ক্রেতা-ভোক্তাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

rangpur

তিনি বলেন, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ বাংলাদেশের একটি অন্যতম ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানটি কেবল ক্রেতাদের পণ্য দিয়েই সেবা করে না। কীভাবে ক্রেতা ও ভোক্তাদের জীবনমান আরও উন্নত করা যায় তা ভেবেই এ ধরণের মেলা ও কনসার্টের আয়োজন করে থাকে। প্রতিষ্ঠানটির অগ্রযাত্রায় সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

কনসার্টের পাশাপাশি মেলায় আশা মানুষজন প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পণ্য সামগ্রীর স্টল ঘুরে দেখেন। অনেকেই নিজের ও প্রিয়জনদের জন্য বিভিন্ন পণ্য কিনে নেন।

আরএফএল ডেকোরেটর চেয়ার নিবেদিত এই মেলার কো-স্পন্সর ভিগো। পাওয়ার্ড বাই ব্রাইট অ্যালুমিনিয়াম। মেলার মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল দেশের অন্যতম জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কম।

এর আগে গত বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় মেলার উদ্বোধন করেন রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের প্রেসিডেন্ট মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু।

তিন দিনব্যাপী এবারের মেলায় ছিল বানর নাচ, বায়োস্কোপ, আগুন নাচ, সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা, নাগরদোলা, শিশু প্রতিযোগিতা ও ফ্রি মেডিকেল চেকআপ।

মেলায় প্রাণ-আরএফএল এর পণ্য সামগ্রী নিয়ে ২৩টি স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়।

জিতু কবীর/এমবিআর/এমএস