ধর্ষণের পর প্রবাসীর স্ত্রীকে আদালতে বিয়ে করলেন ছাত্রলীগ নেতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০৮:৫৭ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৮

জোরপূর্বক তুলে নিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর সঙ্গে ফেনী সদর উপজেলার বালিগাঁও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (সদ্য অব্যাহতিপ্রাপ্ত) ইমরান হোসেন রিপুর বিয়ে হয়েছে। উভয়ের সম্মতিক্রমে রোববার বিকেলে আদালতে তাদের বিয়ে পড়ানো হয়।

জানা যায়, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আসাদুজ্জামান উভয়ের সম্মতিক্রমে বিয়ে পড়ানোর আদেশ দেন। এর প্রেক্ষিতে এজলাসে তাদের বিয়ে পড়ানো হয়।

এ সময় উভয়পক্ষের পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও বাদী পক্ষের আইনজীবী জাহিদ হোসেন খসরু, বিবাদী পক্ষের আইনজীবী ফাহিম নুরসহ অন্য আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে আদালত রিপুকে ১ মাসের জন্য জামিন দেন। ৭ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে রেজিস্ট্রি করেন স্থানীয় ১২নং ওয়ার্ডের বিয়ে রেজিস্ট্রার হুমায়ুন কবীর।

এর আগে ফেনী শহরের নাজির রোড এলাকার একটি বাসায় তুলে নিয়ে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে ৯ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের ঘটনায় রিপুর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন ওই গৃহবধূ।

ঘটনার পর তাকে ছাত্রলীগের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। গত ১৩ মার্চ ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হলে আদালত রিপু ও তার সহযোগী তারেকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। ২৩ মার্চ শহরের মহিপাল থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এএম/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :