এক ইলিশের দামই ৬ হাজার টাকা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পটুয়াখালী
প্রকাশিত: ১২:৫২ পিএম, ২৫ মে ২০১৮

বেশ ক’দিন ধরেই জেলেরা নদীতে জাল ফেলে তেমন কোনো মাছ পাচ্ছিলেন না। কিন্তু এরইমধ্যে পটুয়াখালীর রাবনাবাদ নদীতে ২ কেজি ৫০০ গ্রাম ওজনের একটি ইলিশ ধরে এলাকায় রীতিমত চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছেন জেলে রিপন পন্ডিত (৩৫) ও তার বাবা জালাল পন্ডিত (৭০)। ইলিশটি তিনি স্থানীয় মাছের আড়তে ৬ হাজার ২৫০ টাকায় বিক্রি করেছেন।

বৃহস্পতিবার কলাপাড়ার চম্পাপুর ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের জেলে রিপন রাবনাবাদ নদী থেকে ওই ইলিশটি শিকার করেন। পরে মাছটি গোলবুনিয়া গ্রামের ডাঙ্গা বাজারের মৎস্য ব্যবসায়ী মো. মিলন মৃধার আড়তে ৬ হাজার ২৫০ টাকায় বিক্রি করেন তিনি।

স্থানীয় হাফিজ তালুকদার জানান, রিপন ও তার বাবা জালাল দু’জনেই দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে রাবনাবাদ নদীতে মাছ শিকার করেন। বুধবার রাতে তারা নদীতে ট্রলারে করে ইলিশ শিকারের জন্য জাল ফেলে আসেন। বৃহস্পতিবার সকালে জাল তুলে মাত্র দু’টি ইলিশ পান তারা।

জেলে মো. রিপন পন্ডিত বলেন, জালে ইলিশ ধরা না দেয়ায় হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে আসছিলাম। কিন্তু জালে দুটি ইলিশ বাধে। মাছ দুটির মধ্যে বড়টির ওজন ২ কেজি ৫০০ গ্রাম, এটি বিক্রি করেছি ২ হাজার ৫০০ টাকা কেজি দরে ৬ হাজার ২৫০ টাকায়। আর ছোটটির ওজন হয়েছে ১ কেজি ৫০০ গ্রাম। এটি বিক্রি হয়েছে ১৮শ টাকা কেজি দরে ২ হাজার ৭০০ টাকায়। ইলিশ দুটি গোলবুনিয়া গ্রামের মৎস্য ব্যবসায়ী মিলন মৃধার কাছে বিক্রি করে দিয়েছি।

মৎস্য ব্যবসায়ী মিলন মৃধা বলেন, মাছটি যশোর পাঠাবো। ওই মোকামে এটি চড়া মূল্যে বিক্রি করতে পারবো।

কলাপাড়া সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো.কামরুল ইসলাম জানান, মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানের কারণে লাখ লাখ ইলিশ ডিম ছেড়ে দেয়ার পর নিরাপদে সমুদ্রে চলাফেরা করতে পারে। ফলে ইলিশের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ইলিশ মৌসুম শুরু হতে না হতেই সাগর মোহনা সংলগ্ন রাবনাবাদ নদে এমন বড় সাইজের ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। আসছে ইলিশ মৌসুমে এমন বড় ইলিশ আরও বৃদ্ধি পাবে বলেও জানান তিনি।

মহিব্বুল্লাহ্ চৌধুরী/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :