আসামিপক্ষের কৌশলে ধরা খেল পুলিশ কর্মকর্তা ও কনস্টেবল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৭:০০ পিএম, ১৩ জুলাই ২০১৮
প্রতীকী ছবি

মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দেয়ার তথ্য গোপন রেখে আসামিপক্ষের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার চেষ্টা করায় বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) দীপায়ন বড়াল ও কনস্টেবল সুশান্তকে ক্লোজড করা হয়েছে।

প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই দুই পুলিশ সদস্যকে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করার নির্দেশ দেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) মো. মাহফুজুর রহমান। এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ শাহ মো. আওলাদ হোসেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কোতোয়ালি থানায় দায়ের হওয়া একটি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হলেন উপ-পরিদর্শক দীপায়ন। তিনি সম্প্রতি ওই মামলার চার্জশিট দিয়েছেন। গত ৫ জুলাই কোতোয়ালি মডেল থানার বকশি (কনস্টেবল) সুশান্ত এ তথ্য গোপন রেখে আসামিপক্ষের কামাল হোসেন খানকে ফোন দিয়ে জানান যে ধারা কমিয়ে চার্জশিট দেয়া হবে। এজন্য ১০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন কনস্টেবল সুশান্ত।

পরে সুশান্ত’র সঙ্গে কামাল হোসেন দেখা করলে তার মাধ্যমে মুঠোফোনে কথা বলে একই দাবি করেন উপ-পরিদর্শক দীপায়ন। কামাল হোসেন মুঠোফোনের কথপোকথন এবং মুখোমুখি কথা বলার দৃশ্য গোপনে মোবাইলে ভিডিও করে রাখেন। এ বিষয়ে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে অভিযোগ দেয়া হলে অভিযুক্ত দুই পুলিশ সদস্যকে ক্লোজড করা হয়।

সাইফ আমীন/এমএএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :