দুই বছর পর দেশে ফিরলেন পাচার হওয়া ১৩ নারী

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি বেনাপোল (যশোর)
প্রকাশিত: ০২:১২ এএম, ২১ আগস্ট ২০১৮

ভালো কাজের প্রলোভনে পড়ে বিভিন্ন সময় ভারতে পাচার হওয়া ১৩ বাংলাদেশি নারী দুই বছর পর দেশে ফিরলেন। সোমবার (২০ আগস্ট) রাত ৯টায় ভারতের পেট্রাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদেরকে ট্রাভেল পারমিট আইনে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

ফেরত বাংলাদেশি নারীরা হলেন- যশোরের প্রিয়াঙ্কা শেখ (২৩) ও মুক্তা পারভিন শেখ (২২), নড়াইলের রানু বেগম (২২), সাতক্ষীরার আরজিনা খাতুন সোমা (২১), খুলনার আসমা খাতুন (২১) ও রেশমা বেগম (২২), বাগেরহাটের স্বপ্না শেখ (১৯), ফরিদপুরের তাসলিমা বেগম (২৪), নারায়ণগঞ্জের আনোয়ারা (২০) ও তানজিমা আক্তার (২৩), ময়মনসিংহের মুন্নি আক্তার (২০), ঢাকার আকলিমা আক্তার ঝুমুর (২০) ও চাঁদপুরের নুর নাহার (১৮)।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের ওসি তরিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আইনি প্রক্রিয়া শেষে ইমিগ্রেশন পুলিশ ১৩ বাংলাদেশি নারীকে ‘জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার’ নামে বাংলাদেশি একটি এনজিও সংস্থার হাতে তুলে দিয়েছে।

‘জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের’ এরিয়া সমন্বয়কারী এবিএম মুহিত বলেন, বিভিন্ন সময় পাচারকারীরা এদেরকে ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে সীমান্তের অবৈধপথে ভারতে নিয়ে যায়। অবৈধভাবে ভারতে অবস্থানের কারণে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে আদালতে পাঠায়।

মুম্বাইয়ের ‘নবজীবন’ নামের একটি এনজিও সংস্থা তাদের আদালত থেকে ছাড়িয়ে নিজেদের শেল্টার হোমে রাখে। পরে দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে ভারত সরকারের দেয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিট আইনে তারা দেশে ফেরত আসেন।

মো. জামাল হোসেন/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :