চোর অপবাদ সইতে না পেরে আত্মহত্যা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৯:১৯ এএম, ০৪ নভেম্বর ২০১৮

সালিশি বৈঠকে চুরির অপবাদে বেত্রাঘাত ও জরিমানা করায় রকি হোসেন (২১) নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। পৌরসভার পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার রাত ৮টার দিকে নামাজের জানাজা শেষে তার মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এরআগে শুক্রবার (২ নভেম্বর) রাতে তিনি বাড়িতে বিষপান করে আত্মহত্যা করেন।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, একটি চুরির অভিযোগ এনে শুক্রবার বিকেলে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রিয়াজুল হাছান টিপু সালিশি বৈঠক ডাকেন। সেখানে রকিকে চোর অপবাদ দিয়ে ১৫ বেত্রাঘাত ও ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় তাকে কয়েকটি বেত্রাঘাত করা হয়। এ অপমান সহ্য করতে না পেরে সে আত্মহত্যা করেছে।

নিহত রকি পৌরসভার পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকার তৌহিদ আহমেদের ছেলে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) বিকেলে পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাঞ্চানগর এলাকায় মেস্তুরি বাড়িতে রকি এক ব্যক্তির সুপারি পাড়তে যান। তখন সুপারি পাড়া লাগবে না বললে তিনি চলে আসেন। ওই রাতেই বাড়ির এক ঘর থেকে এলইডি টেলিভিশন ও দুটি মোবাইল ফোন চুরি হয়।

এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে রকিকে পৌরসভার কাউন্সিলর রিয়াজুল হাছান বিসিক এলাকায় তার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে ডেকে আনেন। এ সময় চুরির অপবাদ দিয়ে তাকে জনসম্মুখে ১৫ বেত্রাঘাত এবং ১৫ হাজার টাকা জরিমানার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর তাকে কয়েকটি বেত্রাঘাত করা হয়।

অপমান সহ্য করতে না পেরে তিনি রাতে বিষপান করে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেন। পরিবারের লোকজন দেখে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

রকির বাবা তৌহিদ আহমেদ জানান, তার ছেলে কাজ করে খায়, সে চুরি করেনি। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে অন্যায়ভাবে তাকে বেত্রাঘাত ও জরিমানা করা হয়েছে। অপমান সহ্য করতে না পেরে ছেলে আত্মহত্যা করেছে।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আনোয়ার হোসেন বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তার হাঁটুতে একটি আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। এছাড়া তার বমি পরীক্ষা করার জন্য দেয়া হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার কাউন্সিলর রিয়াজুল হাছান টিপু বলেন, রকির বাবার সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা হয়েছে। এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি শুনে হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়। এ ঘটনায় তার বাবা থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেছেন। প্রতিবেদন পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কাজল কায়েস/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :