কোম্পানিগঞ্জের শাহ আরেফিন টিলায় ফের শ্রমিক নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০২:৩৮ এএম, ১২ নভেম্বর ২০১৮

সিলেটের কোম্পানিগঞ্জে শাহ আরেফিন টিলায় সপ্তাহের ব্যবধানে আবারও শ্রমিক নিহতের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন আরও তিন শ্রমিক। রোববার (১১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় শাহ আরেফিন টিলায় জালিয়ারপাড় গ্রামের হুসিয়ার আলী, ইসমাইল আলী গ্রুপের পাথর তোলার গর্তে পাথর তুলতে গিয়ে গর্ত ধসে সোনাই মিয়া (২৫) নামের এক শ্রমিক নিহত হন। তিনি নেত্রকোনা জেলার বাসিন্দা।

দৈনিক মজুরির চুক্তিতে তিনি প্রায় সাড়ে ছয় মাস ধরে পাথর কোয়ারির গর্ত খুড়ে পাথর উত্তোলনের কাজ করে আসছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যায় জেনারেটরের অালোয় পাথর উত্তোলন করার সময় গর্তের পাড় ধসে তিনি নিচে পড়ে যান। খবর পেয়ে নিহতের মরদেহ পুলিশ উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোম্পানিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, ‌পুলিশ শাহ আরেফিন টিলা থেকে সোনাই মিয়া নামের এক শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। পাথর উত্তোলনের সময় গর্তের পাড় ধসে নিচে পড়ে তিনি মারা যান।

কার কোয়ারিতে এ ঘটনা ঘটেছে- এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘স্থানীয়দের কাছ থেকে পুলিশ কয়েকজনের নাম পেয়েছে। সেগুলো যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।’

এর আগে গত ৪ নভেম্বর শাহ আরেফিন টিলায় গর্ত ধসে খায়ের গাঁও গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে ইব্রাহিম মিয়া আহত হন। এ সময় এক শ্রমিক নিহত হন বলে স্থানীয়রা দাবি করলেও সেই শ্রমিকের পরিচয় পওয়া যায়নি।

গত ১ নভেম্বর আরেক গর্ত ধসে উপজেলার বটেরতল গ্রামের মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে ফরিদ মিয়া নিহত হন। ওই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে গর্তের মালিক দেলোয়ার চৌধুরী, মামুন চৌধুরী এবং হাসনু চৌধুরীর নামে মামলা দায়ের করলেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

ছামির মাহমুদ/এসআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]