এলজিইডির প্রকৌশলীকে পেটালেন ছাত্রলীগ নেতা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৯:০০ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

বরিশালের মুলাদী উপজেলায় নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে বিদ্যালয়ের নির্মাণকাজ করতে বাধা দেয়ায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের সহকারী প্রকৌশলীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মিঠু হাওলাদার।

সরকারি সিডিউল অনুযায়ী কাজ করার নির্দেশনা দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে সহকারী প্রকৌশলী জিয়াউর রহমানকে পেটানো হয়। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের জালালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাজ পরিদর্শনে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

সংবাদ পেয়ে উপজেলা প্রকৌশলী প্রবীর কুমার পাল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জিয়াউর রহমানকে উদ্ধার করে প্রথমে মুলাদী হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত সহকারী প্রকৌশলী জিয়াউর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে জালালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এনবিআইডি (জিপিএস) প্রকল্পের আওতায় নির্মাণাধীন ভবনের ভিত্তি ঢালাইয়ের কাজ পরিদর্শনে যাই।

এ সময় নির্মাণকাজে অনিয়ম দেখে ঠিকাদার ছাত্রলীগ নেতা শাহে আলম মিঠুকে সরকারি সিডিউল মোতাবেক কাজের নির্দেশনা দেই। এতে শাহে আলম ক্ষিপ্ত হয়ে আমার ওপর হামলা চালিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেন।

খবর পেয়ে উপজেলা প্রকৌশলী প্রবীর কুমার পাল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাকে উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য আমাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

উপজেলা প্রকৌশলী প্রবীর কুমার পাল বলেন, সহকারী প্রকৌশলীর ওপর হামলার সংবাদ পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত জিয়াউর রহমানকে উদ্ধার করি। এ ঘটনায় জিয়াউর রহমান মুলাদী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ঠিকাদার শাহে আলম মিঠু হাওলাদার বলেন, বৃহস্পতিবার আমি জালালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণাধীন স্থানে ছিলাম না। তবে শুনেছি উপজেলা সহকারী প্রকৌশলীর সঙ্গে নির্মাণ শ্রমিকদের বাগবিতণ্ডার ঘটনা ঘটেছে।

এ বিষয়ে মুলাদী থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) সাইদ আহমেদ তালুকদার বলেন, এ ঘটনায় সহকারী প্রকৌশলী জিয়াউর রহমান মুলাদী থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাইফ আমীন/এএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :