হেরে যাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে ছাত্রলীগের হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৯:৩১ পিএম, ২০ মার্চ ২০১৯

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা নির্বাচনে হেরে যাওয়ায় পরাজিত প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ। এ ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতিসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আদমদীঘি থানা পুলিশ জানায়, আদমদীঘিতে উপজেলা নির্বাচনে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী। নির্বাচনে তিনি পরাজিত হন।

মঙ্গলবার রাতে বিজয়ী প্রার্থী মাহমুদুর রহমান পিন্টুর পক্ষে কাজ করা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী শহরের রেলগেট চত্বরে পরাজিত প্রার্থী আনছার আলীর ছেলে ছাত্রলীগ নেতা মারুফ হাসান রবিনকে বাজে কথা বলেন।

এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গভীর রাতে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মশিউর রহমান সজলের নেতৃত্বে একটি দল শহরের মাইক্রোস্ট্যান্ড এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলীর বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তারা মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী মুন্নি বেগমকে মারপিট ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন। রাতেই এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ হলে আদমদীঘি সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা অভিযান শুরু করেন।

এ সময় সদ্য নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদুর রহমান পিন্টুর ভাড়া বাসা থেকে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মশিউর রহমান সজল ও ছাত্রলীগ কর্মী একরামুল হক শুভকে গ্রেফতার করা হয়। পরে শুভর দেয়া তথ্যে রাতেই শহরের মেইন রোডে অবস্থিত সজলের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় দ্রুত বিচার ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। দ্রুত বিচার আইনে মামলার বাদী হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী ও অস্ত্র মামলার বাদী আদমদীঘি থানা পুিূলশের সহকারী পরিদর্শক তহিদুল ইসলাম তৌহিদ। বুধবার দুপুরে আসামিদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ সভাপতি মশিউর রহমান সজলের চাচা আদমদীঘি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হক আবু বলেন, উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে জয়ী মাহমুদুর রহমান পিন্টু হলেন সজলের মামা। তিনি জয়ী হওয়ার কারণে একটি মহল এই জয়কে মেনে নিতে না পেরে ষড়যন্ত্র করছে। আমাদের পরিবার ষড়যন্ত্রের শিকার।

আদমদীঘি সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়ে অভিযান চালিয়ে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের কাছে অস্ত্র পাওয়া গেছে। আসামিরা মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে হামলার কথা স্বীকার করেছে। তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

লিমন বাসার/এএম/এমএস