ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় ধর্ষক মন্টু রায় গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রংপুর
প্রকাশিত: ১০:১৬ পিএম, ২০ এপ্রিল ২০১৯

বাবাকে শ্রমিক হিসেবে নিয়ে কাজে লাগিয়ে বাড়িতে গিয়ে তার পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক মন্টু রায়কে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানা পুলিশ লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের চন্দ্রপুর সীমান্ত থেকে তাকে শুক্রবার রাতে গ্রেফতার করে। শনিবার দুপুরে আদালতে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে মন্টু রায়।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (হেডকোয়ার্টার্স অ্যান্ড মিডিয়া) আলতাফ হোসেন শনিবার দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, অভিযুক্ত ধর্ষক মন্টু রায় ভারতে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। শুক্রবার রাতে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ থানার সীমান্তবর্তী চন্দ্রপুর শিয়াল খাওয়া বলাইর হাট এলাকার তার ভগ্নিপতির বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার দুপুরে অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আরিফা ইয়াসমিন মুক্তার আদালতে হাজির করা হলে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় মন্টু।

১৫ এপ্রিল রংপুর নগরীর পান্ডারদিঘি ধাপ কামারপাড়া এলাকায় এক দিনমজুরকে জমিতে ঘাস কর্তনের জন্য শ্রমিক হিসেবে নেয় মন্টু রায়। বাবা জমিতে ঘাস কর্তন করতে থাকলে মন্টু তার বাড়িতে গিয়ে টিভি দেখারত অবস্থায় ৫ম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটির চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসলে ধর্ষক মন্টু পালিয়ে যায়। শিশুটির মা এসময় অন্যের বাড়িতে কাজ করতে গিয়েছিলেন।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে থানায় মামলা করেন। ধর্ষক মন্টু রায়সহ ধর্ষণের ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে ধর্ষককে সহযোগিতার অভিযোগে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা হারাধন রায়সহ চারজনকে এ মামলার আসামি করা হয়েছে।

জিতু কবির/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :